প্রয়াত বাংলা চলচ্চিত্র জগতের কিংবদন্তী তারকা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। বাংলা চলচ্চিত্র জগতের এক অধ্যায়ের অবসান। শুরু থেকে শেষ, থেমে থাকা নয়, একের পর এক ছবি করে গিয়েছেন তিনি। একাধিক কালের সংযোগে দাঁড়িয়ে বয়সকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে মানুষ উপহার দিয়ে গিয়েছেন একের পর এক ছবি। গত ৬ অক্টোবর করোনাতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন অভিনেতা। এক মাসের বেশি সময় হাসপাতালে থাকার পর জীবনযুদ্ধে হেরে গেলেন সৌমিত্র। 

নেই সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, টলিউডের মাথার ছাদ চলে গেল বললেও চলে। অভিভাবকহীন টলিপাড়া শোকে কাতর। করোনার উপসর্গ দেখা যাওয়ার পরই তাঁর টেস্ট করানো হয়েছিল। ভর্তি করা হয়েছিল কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে। গত ৪৮ ঘণ্টা ধরে তাঁর স্বাস্থ্যের অবস্থা ভালো ছিল না। ক্রমেই মিলছিল অবনতি ঘটবার খবর। কালীপুজোর পরের দিন দুপুরে মিলল দুঃসংবাদ। শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন অভিনেতা। 

করোনা ছাড়াও তাঁর শরীরে ছিল একাধিক মারণ অসুখের থাবা। ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন সৌমিত্র। করোনা সেরে গেলেও সংক্রমণ ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ছিল সারা দেহে। পাশাপাশি ফুসফুসের সমস্যাও দেখা দেয়। গায়ে ছিল জ্বর। ভেন্টিলেশনে দেওয়া হয়েছিল অভিনেতাকে। বসানো হয়েছিল মেডিক্যাল বোর্ড, তবে শেষ রক্ষা হল না।