রিয়া চক্রবর্তীর আদেশেই সৌভিক চক্রবর্তী ড্রাগ আনতেন। এনসিবির জেরায় মুখ খুললেন শৌভিক। টানা নয় ঘন্টা জেরার পর গ্রেফতার হলেন শৌভিক। একই সঙ্গে গ্রেফতার করা হয়েছে সুশান্ত সিং রাজপুতের বাড়ির ম্যানেজার স্যাম্যুয়েল মিরান্ডা। ভারতীয় দণ্ডবিদি অনুযায়ী ২০,২২, ২৬, ২৭ এবং ২৮ ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধে। 

এনসিবি তাঁদের দু'জনকে গ্রেফতার করার আগে ভোর ৬:৩০ নাগাদ রিয়া এবং স্যাম্যুয়েলের বাড়িতে রেড চালায় দেড় ঘন্টা। জরুরি নথি পাওয়ার পর তাঁদের সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় জেরার জন্য। দীর্ঘক্ষণ জেরার পর গ্রেফতার করা হয়েছে তাঁদের। শনিবার আদালতে পেশ করা হবে তাদের। এনসিবি রিয়াকেও সমন করেছে বলে জানা যাচ্ছে। 

ভোর থেকেই চলছিল এনসিবি বনাম শৌভিক, মিরান্ডা। রিয়ার বাড়ির সামনে এনসিবির টিমকে দেখে জল্পনা ছিল তুঙ্গে। সেখানকার ছবি ভিডিও ভাইরাল হতেই নেটিজেনের অনুমান ছিল গ্রেফতার হতে পারেন রিয়া।