গ্রেফতার হলেন সুশান্ত মামলার মূল অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী। দীর্ঘ জল্পনার পর বড় সাফল্য। সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তে প্রতিদিনই যেন নয়া মোড় বেরিয়ে আসছে। সিবিআই-এর হাতে মৃত্যুর তদন্তভার তুলে দেওয়ার পরই একের পর এক গোপন সত্য ভাইরাল হচ্ছে।মুম্বই পুলিশ,বিহার পুলিশ, ইডি, সিবিআই-এর পর সুশান্তের মৃত্যু মামলা খতিয়ে দেখতে তদন্তভার নিয়েছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। শুধু ড্রাগ সেবন নয়, ড্রাগ পাচার এবং ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে ড্রাগ আদান-প্রদানেরও অভিযোগ আনা হয়েছে রিয়া ও তার সঙ্গীদের বিরুদ্ধে। একাধিকবার এনসিবি-র জেরার মুখে পড়েছিলেন অভিনেত্রী।

 

 

আজ তৃতীয়দিনের এনসিবি জেরার মুখে ভেঙে পড়লেন রিয়া চক্রবর্তী। সূত্র থেকে জানা গেছে, তিনি যে মাদক সেবন করেন সেই কথা মেন নিয়েছেন রিয়া। শুধু তাই রিয়া ও তার ভাইয়ের কাছ থেকেই বলিউডের আরও ২৫ জন সেলেবদের নামও উঠে এসেছে। যারা সকলেই এই মাদকচক্রের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। কয়েকদিন আগেই মাদকচক্রে জড়িত থাকার জন্য গ্রেফতার করা হয়েছে রিয়া চক্রবর্তীর ভাই সৌভিককে। এবারও রিয়াও স্বীকার করে নিলেন মাদক সেবনের কথা।

 

 

 

আজ মেডিক্যাল টেস্ট হবে রিয়ার।  রিয়ার বাড়িতেও তল্লাশি চালিয়েছিল এনসিবি। সেখান থেকেই বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে রিয়ার ল্যাপটপ। তারপর থেকেই বিভিন্ন তথ্য বেরিয়ে আসছে। প্রতিদিনই এনসিবি দফতরে দফায় দফায় জেরা চলছে।  গতকালই বান্দ্রা থানায় সুশান্তের দুই দিদি প্রিয়াঙ্কা সিং ও মিতু সিং ও চিকিৎসক তরুণ কুমারের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় এফআইআর দায়ের করেছেন অভিনেত্রী। রিয়ার করা এই এফআইআর-কে ভুয়ো বলে দাবি করেছেন সুশান্তের আরেক দিদি শ্বেতা সিং কীর্তি।