কোভিড-এর মারণ থাবা কেড়ে নিল প্রাণ। ফের ধাক্কা টেলিজগতে।করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত'ইয়ে রিসতা ক্যা কহেলতা হ্যায়'-খ্যাত অভিনেত্রী দিব্যা ভাটনগর। গত ২৬ নভেম্বর করোনায় আক্রান্ত  হয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল অভিনেত্রীকে । হাসপাতালে ভর্তির হওয়ার পরই ক্রমশ খারাপ হতে শুরু করে অভিনেত্রীর শারীরিক অবস্থা। তারপরই তাকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছিল। কিন্তু শেষরক্ষা আর হল না। করোনা ভাইরাসই কেড়ে নিল অভিনেত্রীর প্রাণ। বিদ্যার মৃত্যুর খবরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে টেলিদুনিয়ায়। অভিনেত্রী দেবলীনা ভট্টাচার্য আবেগঘন পোস্ট শেয়ার করেছেন বন্ধুর মৃত্যুতে।

 

 

দিব্যার মা সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিল, গত ৬ দিন ধরে জ্বর কমছিল না দিব্যার। এর পাশাপাশি শরীরে বিভিন্ন ধরনের উপসর্গ দেখা দিতে শুরু করে দিব্যার। তারপরই বাড়িতে অক্সিমিটার নিয়ে এসে পরীক্ষা করা হয়। এবং তাতে দেখা যায়, দিব্যার শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা অনেকটাই নেমে গেছে। এবং তখনই তড়িঘড়ি করে  হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অভিনেত্রীকে।  মুম্বইয়ের এসআরভি হাসপাতালে ভর্তির কিছুক্ষণের মধ্যেই দিব্যাকে ভেন্টিলেটরে পাঠায় চিকিৎসকরা। 

 

 

 কিছুদিন আগেও একটি সাক্ষাৎকারে  দিব্যার ভাই জানিয়েছিলেন দিব্যার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই চলছিল লড়াই। কিন্তু নিউমোনিয়া অনেকটা ছড়িয়ে যাওয়ার ফলে তা মারাত্মক আকার নিল।  কয়েক মাস আগে গগন নামের এক ব্যাক্তিকে বিয়ে করেন দিব্যা। গগনের সঙ্গে মেয়ের সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি অভিনেত্রীর পরিবার। ফলে মুম্বইয়ের মীরা রোডের বিলাসবহুল ফ্ল্যাট- পরিবারকে ছেড়ে গগনের সঙ্গে ওশিওয়াড়ার ছোট্ট ফ্ল্যাটে  চলে যান দিব্যা। দিব্যাকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর অভিনেত্রীর মা অভিযোগ করেন, বিয়ের কয়েক মাসের পরই দিব্যাকে ছেড়ে চলে যান তাঁর স্বামী। শুধু তাই নয়, দিব্যার ঠিকমতো দেখভালও করত না  স্বামী, যার কারণেই সে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে এসেছে। তেরা ইয়ার হু ম্যায় ধারাবাহিকে কাজ করছিলেন দিব্যা।