বর্ধমান রেল স্টেশনে বড়সড় দুর্ঘটনা। এ দিন রাত ৮.১৫ নাগাদ আচমকাই বর্ধমান স্টেশনের মূল ভবনের একাংশ হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। যে অংশ ভেঙে পড়েছে, সেখানে অনুসন্ধান কেন্দ্র এবং টিকিট কাউন্টার রয়েছে। ফলে বহু মানুষ সেখানে সবসময়ই থাকেন। ইতিমধ্যেই দমকলের দু'টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধারকাজ শুরু করেছে। দু' জনকে ধ্বংসস্তূপের নীচ থেকে উদ্ধার করে স্থানীয়রাই হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ধ্বংসস্তূপের তলায় আরও বেশ কয়েকজনের আটকে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। 

বর্ধমান স্টেশনের মতো গুরুত্বপূর্ণ এবং ব্যস্ত স্টেশনের মূল অফিস ভবনটি কেন এভাবে ভেঙে পড়ল, তা নিয়েই প্রশ্ন উঠছে। স্টেশনের মূল প্রবেশ পথই ওই ভবনের নীচ দিয়ে। রাত ৮.১৫ থেকে ৮.২০-র মধ্যে যখন এই দুর্ঘটনা ঘটেছে, তখন স্টেশন ভিড়ে ঠাসা ছিল। অফিস ফেরত যাত্রীদের পাশাপাশি দূরপাল্লার ট্রেন ধরতেও বহু মানুষ সেখানে অপেক্ষা করছিলেন। ফলে অনেকেরই ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। 

আরও পড়ুন- বর্ধমানে ভেঙে পড়ছে স্টেশন ভবন, দেখুন সেই ভয়াবহ মুহূর্তের ভিডিও

আরও পড়ুন- তাসের ঘরের মতো ভাঙল বর্ধমান স্টেশন ভবন, আতঙ্কে দিশেহারা যাত্রীরা

যে ভবনটি ভেঙে পড়েছে, সেটি যথেষ্টই পুরনো। ফলে ভবনের বাকি অংশও ভেঙে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। রক্ষণাবেক্ষণের গাফিলতির জেরেই এই দুর্ঘটনা কি না, তাও এখনও স্পষ্ট নয়। 

ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে দমকল, পুলিশ, আরপিএফ, জিআরপি পৌঁছে এলাকাটি ঘিরে ফেলেছে। ভিড় সরিয়ে দ্রুত ধ্বংসস্তূপের নীচে কেউ আটকে থাকলে তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে। 

বর্ধমানের মতো ব্যস্ত স্টেশনে দোতলা এই ভবনটিতে কোনও সমস্যা হয়ে থাকলেও তা রেল কর্তা বা আধিকারিকদের চোখে পড়ল না কেন, সেই প্রশ্নও উঠতে শুরু করেছে। আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন স্টেশন চত্বরে থাকা যাত্রীরা।