ফের সরকারি হাসপাতাল থেকে শিশু চুরির অভিযোগ। এবার নিজেকে  আশা কর্মী পরিচয় দিয়ে মায়ের থেকে শিশু নিয়ে চম্পট দিল অভিযুক্ত। 

পুলিশ সূত্রে খবর, ক্ষতিগ্রস্ত ওই মহিলা পূর্ব বর্ধমানের রায়নার সিপটা এলাকার বাসিন্দা। শুক্রবার বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কন্যা সন্তান প্রসব করেন রিমা মালিক। রবিবার তার ছুটি হয়ে যায়। রিমার পরিবারের বক্তব্য, রিমাকে বসিয়ে রেখে ওষুধ কিনতে যান তার স্বামী সন্দীপ। সেই সময় রিমার সঙ্গে এক মহিলার পরিচয় হয়। নিজেকে আশাকর্মী পরিচয় দেয় ওই মহিলা। কথা বার্তা  এগোলে ওই মহিলা বলেন, সন্তানের জন্য় সরকারিভাবে ৬০০০ টাকা পাওয়া যায়।  বর্ধমান অনাময় হাসপাতালে নিয়ে গেলেই মিলবে ওই সুবিধা।

পরে ওই মহিলার পরামর্শ অনুযায়ী সরকারি গাড়ি না নিয়ে তারা একটি টোটো ভাড়া করে অনাময় হাসপাতালে যান। সেখানে একটি লাইনে কাগজপত্র দেখতে দাঁড় করানো হয় সন্দীপকে। কাগজ ঠিক  হলেই সন্তানের জন্য় টাকা  মিলবে বলে দাবি করে ওই মহিলা। পরে ওজন করার নাম করে নিয়ে যাওয়া হয় ওই শিশুকে। অনেকক্ষণ পেরিয়ে গেলেও শিশু নিয়ে আর ফিরে আসেনি ওই মহিলা। সন্দেহ হতেই পুলিশে খবর দেওয়া হয়। 

ইতিমধ্য়েই গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুলিশের একাংশ জানিয়েছেন, বেশ ভুষা দেখে ওই মহিলাকে শিশু চোর বলে ভাবতেই পারবে না কেউ। যদিও সদ্য়োজাতকে  হারিয়ে এখন হাহাকাার শুরু হয়েছে মালিক পরিবারে।  ঘটনার পর হাসপাতাল চত্বরে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।