Asianet News BanglaAsianet News Bangla

Derek O'Brien Covid-19 positive: করোনা আক্রান্ত ডেরেক, লাভ হল না 'অতি সতর্ক' হয়েও


কোভিড-১৯ (COVID-19) আক্রান্ত ডেরেক ও'ব্রায়েন (Derek O'Brien)। তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) রাজ্যসভার সাংসদের একেবারেই হালকা উপসর্গ রয়েছে। 

TMC MP Derek O'Brien tests positive for Covid-19, have moderate symptoms ALB
Author
Kolkata, First Published Dec 28, 2021, 12:05 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

কোভিড-১৯ (COVID-19) আক্রান্ত হলেন তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়েন (Derek O'Brien)। মঙ্গলবার, তিনি নিজেই একটু টুইট করে এই খবর দেন। তবে তিনি জানিয়েছেন, তাঁর একেবারেই হালকা উপসর্গ রয়েছে। তাই হাসপাতাল নয়, আপাতত বাড়িতেই  স্ববিচ্ছিন্নতায় থাকবেন তিনি। গত তিনদিনের মধ্যে যাঁরা তাঁর সংস্পর্শে এসেছেন এবং করোনার উপসর্গ দেখা যাচ্ছে, তাঁদের সকলকে তিনি চিকিৎসকদের পরামর্শ নেওয়ার কথা বলেছেন। তৃণমূল সাংসদ আরও জানিয়েছেন, তিনি সর্বদা 'অতি সতর্ক' ছিলেন, তাও করোনা থেকে রেহাই পেলেন না তিনি। 

লোকসভা ও রাজ্যসভার সকল সাংসদদেরই করোনা টিকার সম্পূর্ণ ডোজ নেওয়া হয়ে গিয়েছে। ডেরেক'কে কখনই প্রকাশ্যে মাস্ক ছাড়া দেখাও যায়নি। তা সত্ত্বেও করোনা সংক্রমণ ছাড়ল না তাঁকে। তবে সময়টা বিশেষ ভাল যাচ্ছে না ডেরেকের। ঠিক এক সপ্তাহ আগে, গত মঙ্গলবারই তাঁকে রাজ্যসভার (Rajya Sabha) শীতকালীন অধিবেশনের (Winter Session) বাকি অংশ থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছিল। সাংবাদিকদের ডেস্কে রাজ্যসভার নিয়মাবলীর বই নিক্ষেপ করার কারণে তাঁর বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ এনে তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়। 

গত মঙ্গলবারই, লোকসভার (Lok Sabha) সাংসদ কুনওয়ার দানিশ আলিরও (Kunwar Danish Ali) কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফল ইতিবাচক এসেছিল। বিএসপি (BSP) নেতাও জানিয়েছিলেন, তিনি টিকার সম্পূর্ণ ডোজ পেয়েছিলেন এবং তাঁর হালকা উপসর্গ রয়েছে, আশা করছেন শীঘ্রই সেরে উঠবেন। তিনি করোনা পজিটিভ সনাক্ত হওয়ার আগেরদিনই লোকসভায় উপস্থিত থাকায় লোকসভায় করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল। কিন্তু, তা ঘটেনি। 

এদিন ডেরেক ও'ব্রায়েনের খবরটা আসার আগেই জানা গিয়েছিল কোভিড-১৯ আক্রান্ত বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট (BCCI President) তথা ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (Sourav Ganguly)। সোমবার রাতেই তাঁর করোনা পরীক্ষা করানো হয়েছিল, এদিন রিপোর্ট আসে পজেটিভ। তাঁর ভাইরাল লোড বেশি থাকায়, ঝুঁকি না নিয়ে তাঁকে আলিপুরের এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভারতে যে করোনার চতুর্থ তরঙ্গের মুখে দাঁড়িয়ে, তা, গত কয়েকদিনে এই বিভিন্ন ক্ষেত্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্বদের সংক্রামিত হওয়ার ঘটনায় প্রমাণিত। 

দেখা যাচ্ছে, করোনা টিকার সম্পূর্ণ ডোজ নেওয়ার পরও অনেকেই করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন, কিন্তু, তাদের উপসর্গ থাকছে খুবই কম। তাই বাড়িতে থেকে বা হাসপাতালে অল্প চিকিৎসাতেই তাঁরা সুস্থ হয়ে যাচ্ছেন। তাই সরকার থেকে বারবার বলা হচ্ছে টিকা নিতে এবং মাস্ক ব্যবহার ও হাত ধোয়ার অভ্যাস বজায় রাখতে। করোনা যুদ্ধে এইগুলিই আমাদের ঢাল তরোয়াল। সংস্পর্শে এসেছেন তাদের নিজেদেরকে বিচ্ছিন্ন করার আহ্বান জানিয়েছেন।

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios