মঙ্গলবার দুপুরেই বৈঠক করে নয়া ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গোটা রাজ্য জুড়ে চলবে লক ডাউন ৩১ মার্চ পর্যন্ত। বৈঠকের শেষেই তিনি জানিয়েছিলেন সারপ্রাইজ ভিডিটের কথা। মুহূর্তে দেখা যায় তাঁর কনভয় পৌঁছয় আর জি কর হাসপাতালে। সেখানে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন তিনি। পাশাপাশি সুপারদের হাতে তুলে দেন কিট। যাতে ছিল মাস্ক, স্যানিটাইজর। একইভাবে তিনি পৌঁছে যান মেডিকেল কলেজ ও এনআরএস-এ। স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষিত থাকার পরামর্শও দেন তিনি। 

আরও পড়ুনঃ আপাতত স্বস্তি, দমদমের মৃতের পরিবারে করোনা নেগেটিভ.

মঙ্গলবার বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিশ্বে করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্যানের দিকে তাকিয়ে জানান, প্রথমে এক লক্ষের সংক্রমণ হতে সময় লেগেছিল ৬৫ দিন। কিন্তু শেষ চারদিনে বেড়েছে এক লক্ষ। ফলে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। তাই তড়িঘড়ি এই সিদ্ধান্ত নিলেন মমতা। 

আরও পড়ুনঃ দমদমে করোনায় মৃতের সহকর্মী হাসপাতালে, ভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে অফিস

আংশিক লক ডাউন আর নয়। কিছু কিছু জেলা কিংবা মিউনিসিপালিটিতে নয়, গোটা রাজ্য জুরে লক ডাউনের কথা এদিন বলেন তিনি। পাশাপাশি তিনি এও জানান, বাজারে গিয়ে ভিড় করা নয়। গায়ে গায়ে দাঁড়িয়ে থাকা নয়। এভাবেই ছড়িয়ে পড়বে করোনা। হাত জোর করে অনুরোধ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, যাতে কেউ কাউকে স্পর্শ না করে, নিঃশ্বাস যেন কাছে না আসে। সকলকে সাবধানে থাকার কথাও উল্লেখ করেন তিনি। 

করোনা মোকাবিলায় রক্ষা করুন নিজেকে, মেনে চলুন 'হু' এর পরামর্শ

সাবধান, করোনা আতঙ্কের মধ্যে এই কাজ করলেই হতে পারে জেল

কী করে করোনার হাত থেকে রক্ষা করবেন আপনার বাড়ির বয়স্ক সদস্যদের, রইল তারই টিপস

শরীরে কীভাবে থাবা বসায় করোনা, জানালেন বিশেষজ্ঞরা