করোনা আক্রান্ত হলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। শনিবার, তাঁর কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফল ইতিবাচক এসেছে বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী। তবে, ইমরানের উপসর্গ সেরকম নেই বলে আপাতত তিনি বাসভবনেই স্ব-বিচ্ছিন্নতায় থাকছেন।

পরে ৬৭ বছরের পাক প্রধানমন্ত্রী নিজেই তাঁর আক্রান্ত হওয়ার খবর জানান টুইট করে। প্রসঙ্গত, ১৮ মার্চই চিনের সিনোফার্ম-এর তৈরি কোভিড টিকার ডোজ নিয়েছিলেন তিনি। ভারতের মতো পাকিস্তানেও এখন করোনার টিকাকরণ অভিযান চলছে। বর্তমানে পাকিস্তানে শুধুমাত্র সিনোফার্মের তৈরি করোনা টিকাই পাওয়া যাচ্ছে। কোভিশিল্ড ও কোভ্যাক্সিনের মতো এই টিকারও দুটি ডোজ দিতে হয়। ইমরান খান প্রথম ডোজ নিয়েছেন।

এএনআই-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত ১ ফেব্রুয়ারি চিনের পক্ষ থেকে পাকিস্তানে সিনোফার্মের তৈরি করোনা ভ্যাকসিনের ৫,০০,০০০ ডোজ পাঠানো হয়েছিল। তার একদিন পর থেকেই পাকিস্তানে টিকাকরণ অভিযান শুরু হয়েছিল। এরপর গত ১৭ মার্চ চিন থেকে সিনোফার্মের টিকার দ্বিতীয় চালান আসে পাকিস্তানে। তার পরের দিনই টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন ইমরান খান।

এদিকে ইমরান খান টিকা নেওয়ার পরও করোনাভাইরাসে সংক্রামিত হওয়ায়, চিনা টিকাটির কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে পাক সোশ্যাল মিডিয়ায়। পরে পাকিস্তান সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজটিই ইমরান নিয়েছিলেন। দুটি ডোজ না নেওয়া পর্যন্ত ভ্যাকসিন কাজ করবে না।

পাকিস্তানেও বর্তমানে ফের করোনার দাপট বাড়ছে। শনিবারই সেই দেশে ৩,৮৭৬ টি নতুন সংক্রমণের ঘটনা নথিভুক্ত করা হয়েছে। যা ২০২১ সালে সর্বোচ্চ। পাক স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ৪০ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। সব মিলিয়ে পাকিস্তানে এই পর্যন্ত মোট কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন, ৬,২৩,১৩৫, আর মৃত্যু হয়েছে ১৩,৭৯৯।