প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘোষণার পরই দেশজুড়ে শুরু হয়েগেছে লকডাউন। প্রধানমন্ত্রী নিজেই বলেছেন এটা কারফুর থেকে কম কিছুনা। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রখতে রীতিমত কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। দেশের নাগরিকদের কাছে এই ২১ দিন বাড়িতে  থাকার আর্জিও জানিয়েছেন তিনি। তবে তার আগে থেকেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বাড়ি থাকার মরামর্শ দেওয়া হয়েছিল।  এই অবস্থায় এখনও অনেক মানুষ রয়েছেন যাঁরা অপ্রয়োজনেই বাড়ি থেকে বার হচ্ছেন। ঘুরে বেড়াচ্ছেন ইতিউতি। তাদের শায়েস্তা করতে কিছুটা হলেও কড়া পদক্ষেপ নিল পঞ্জাব পুলিশ।  কোথায় লকডাউন ভেঙে রাস্তায় বার হওয়ার অপরাধে ওঠবোস করানো হল যুকব থেকে প্রৌঢ নাগরিকদের। আর সেই সময় তাদের দিয়ে জোর করে বলান হল তারা আইন ভেঙে রীতিমত ক্ষতি করেছে সমাজের। তারা কিছুতেই বাড়িতে বসে থাকতে পারে না। 

সুদূর ইংল্যান্ড থেকে ভাইরাল এই ভিডিওটি। যিনি ভিডিওটি পোস্ট করেছেন তিনি পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংকে রীতিমত সাধুবাদ জানিয়েছেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রুখতে তাঁর পুলিশের এই কঠোর পদক্ষেপকে রীতিমত প্রশংসা জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি  লকডাউনের আগেই আরও একটি ভিডিও ভাইরাল। যেথানে দেখা গেছে পথচারী কয়েকজন যুকবকে রীতিমত শাস্তি দেওয়া হচ্ছে। একই ব্যক্তি পোস্ট করেছেন দুটি ভিডিও। 

অন্যদিকে লকডাউনের প্রথম দিনেই পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী একটি ভিডিও পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দেখা যাচ্ছে এক সবজি বিক্রেতার কাছ থেকে সবজি কিনে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে বাড়ি বাড়ি। পাশাপাশি বিক্রেতাকে হাত পরিষ্কার রাখার পরামর্শ দিয়ে স্যানিটাইজার এগিয়ে দিতে দেখা গেছে এক পুলিশ কর্মীকে। পুলিশের এই ভূমিকাকে রীতিমত সাধুবাদ জানিয়েছেন ক্যাপ্টেন অমৃন্দর সিং। তিনি লিখেছেন ওয়েল ডান পঞ্জাব পুলিশ।   

পঞ্জাবে এখনও পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২৯। ইতিমধ্যেই মৃত্যু হয়েছে একজনের।  পরিস্থিতিতে মোকাবিলায় সোমবার থেকেই যাত্রীবাহী যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী লকডাউনের কথা ঘোষণা করার পর তা বাস্তাবিয়িত করতে উদ্যোগী হয়েছেন ক্যাপ্টেন।