আইসিসি’র সঙ্গে এবার সংঘাতের আবহ তৈরি হচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের। বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন বিষয়ে আইসিসি ও ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। গত তিন বছর ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড চলেছে প্রশাসকদের আধীনে। সেই সুযোগে বেশ কিছু দিক থেকে ভারতকে বঞ্চিত করেছে আইসিসি। এবার সৌরভরা সেই গত তিন বছরের হিসেবটা নিতে চান। এদিকে আইসিসি ফিউচার ট্যুর প্রোগরাম নিয়ে ইতিমধ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। তারা জানিয়ে দিয়েছে মেম্বার পার্টিসিপেশন চুক্তিতে তারা সই করবে না। এই অবস্থায় আইসিসি’র সঙ্গে সংঘাতের অবস্থা তৈরি হয়েছে ইসিবির। তাই ইংলব্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথা বলতে চাইছেন সৌরভরা। 

আরও পড়ুন - শ্রীলঙ্কার হাত ধরে দশ বছর পর টেস্ট ক্রিকেট ফিরছে পাকিস্তানে

২০১৬ সালের টি-২০ বিশ্বকাপ থেকে আইসিসি ও ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের মধ্যে শুরু হয়েছে চরম সংঘাত। আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপে কর মুকুবের দাবি করেছে। সেই ছাড় না পেলে তারা ভারতীয় বোর্ডের শেয়ার কমিয়ে দেওয়ার কথা বলছে। একই সঙ্গে ২০২১ সালে টি-২০ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালের ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ হওয়ার কথা ভাকতে। করে ছাড় না পেলে বিশ্বকাপ ভারতে থেকে অন্য জায়গায় সরিয়ে নেওয়ার হুমকিও দিচ্ছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়াম সংস্থা। বোর্ডের পক্ষ থেকে আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কর ছাড় দেওয়ার অধিকার ক্রিকেট বোর্ডের নেই। সরকার একমাত্র এি বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারে। 

আরও পড়ুন - প্রথম দুই ম্যাচে মোট ৪৪টি ছয়, ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে ছক্কার ফুলঝুড়ি

আইসিসি’র এমন অচরণে ভারত ভরসা রাখতে পারে আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহরের ওপর। শশাঙ্ক ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সঙ্গে দীর্ঘদিন যুক্ত ছিলেন। দু’বার বিসিসিআই সভাপতির পদেও বসেছেন। একই সঙ্গে ভারতের একজন আইনজীবী হওয়া দেশের ট্যাক্স সংক্রান্ত বিষয়ে যথেষ্ট ওয়াকিবহাল তিনি। আইসিসি চাইছে বিশ্বকাপ সরিয়ে নেওয়ার ভয় দেখিয়ে ভারতকে ফিউচার ট্যুর প্রোগরামে সই করিয়ে নিতে। কিন্তু চাপ না পরে পাল্টা আইসিসিকেই চাপে ফেলতে চাইছে ভারত। তাই ইংল্যান্ডে গিয়ে ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ডের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করতে চলেছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও জয় শাহ। এমনই খবর উঠে আসছে বোর্ড সুত্র থেকে। 

আরও পড়ুন - রঞ্জি ট্রফির প্রথম দিনই বিপত্তি, মাঠে সাপ ঢুকে পড়ায় খেলা শুরু হতে দেরি