টিম সাউদি আরো একবার প্রমাণ করলেন যে কেন তাকে বিশ্বের সেরা সুইং বোলারদের একজন বলা হয়। মূলত তার অসাধারণ বোলিংয়ের দৌলতেই ওয়েলিংটনের বেসিন রিসার্ভে ভারতকে হারায় নিউজিল্যান্ড। গোটা ম্যাচে সাউদি তুলেছেন ৯ টি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে অসাধারণ বোলিং করে তুলেছেন ৫ টি উইকেট। প্রথম ইনিংসে নবাগত পেসার কাইল জেমিসনের সাথে সাথে তিনিও ভেঙেছিলেন ভারতীয় ব্যাটিং লাইন-আপ কে। ৪৯ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। তাদের অসাধারণ পারফরম্যান্সের দৌলতে টেস্ট ক্রিকেটে সোমবার নিজেদের শততম জয় উদযাপন করে নিউজিল্যান্ড। 

ভারতের টেস্ট ম্যাচে ফেরার যেটুকু আশা ছিল তা আজ সকালে মুহুর্তের মধ্যে ভেঙে দেন সাউদি-বোল্ট জুটি। তাদের বিষাক্ত বোলিংয়ের সামনে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে ভারতীয় লোয়ার অর্ডার। সাউদিকে যোগ্য সঙ্গত দিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট। প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়া নবাগত দীর্ঘদেহী পেসার কাইল জেমিসন অবশ্য দ্বিতীয় ইনিংসে কোনো উইকেট পাননি। 

দুই ইনিংসেই অসাধারণ বোলিং করার জন্য সাউদিকেই ম্যাচের সেরা বেছে নেওয়া হয়। এরপর ম্যাচের সেরার পুরস্কার নিতে এসে সাউদি জানিয়েছেন দলের জয়ে অবদান রাখতে পেরে তিনি খুব খুশি। পিচে প্রচুর সাহায্য ছিল পেসারদের জন্য, তাই লাইনে লেংথ ঠিক রেখে বল করতেই সাফল্য এসেছে। ম্যাচ চলাকালীন মাঠে সুন্দর হাওয়া বইছিল, যা তাদের আরো সাহায্য করেছে। দলের বাকি পেসারদের বোলিংয়ের প্রশংসাও করেছেন তিনি। তারা ম্যাচে এক বারের জন্যও মাথা তুলতে দেননি। সাউদির মতে এমন পারফরম্যান্স দলের মনোবল বাড়াবে। 

সোমবারের পাঁচ উইকেট নেওয়ার সাথে সাথে কেরিয়ারে মোট ১০ বার পাঁচ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড করে ফেললেন ৩১ বছর বয়সী পেসার। তার সামনে এখন শুধু দুজন, রিচার্ড হ্যাডলি এবং ক্রিস ক্রেনস। টেস্ট ক্রিকেটে হ্যাডলি ১৬ বার এবং ক্রেনস ১৩ বার পাঁচ উইকেট নিয়েছেন।