সময়টা একেবারে ভালো যাচ্ছে না পাকিস্তানি ক্রিকেটার উমর আকমল-এর। পিসিবি শুরুর মুখেই সাময়িকভাবে নির্বাসিত হয়েছেন দুর্নীতির অভিযোগে। তার আগে 'সেলফি কিং' নামে পরিচিত উমর তার কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্স দলের সহকারি কোচ তথা প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার আব্দুল রজ্জাক-এর সঙ্গে সেলফি পোস্ট করে হাসির খোরাক হলেন। এতটাই, যে শেষ পর্যন্ত সেই পোস্ট সরিয়ে ফেলতে হল।

বৃহস্পতিবার করাচিতে ইসলামাবাদ ইউনাইটেড বনাম কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্স-এর খেলা দিয়ে শুরু হচ্ছে পিএসএল ২০২০। বুধবার, বিমানে গ্ল্যাডিয়েটর্স-এর সতীর্থদের সঙ্গে করাচি আসেন আকমল। বিমানে তাঁর পাশে ছিলেন আব্দুল রজ্জাক। যথারীতি আকমল তাঁদের একটি সেলফি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। কিন্তু সঙ্গে ক্যাপশন-টি লিখতে গিয়েই গন্ডোগোল করে বসেন।

আরও পড়ুন - দুর্নীতির অভিযোগে সাসপেন্ড উমর আকমল, অপরাধ নিয়ে রয়েছে রহস্য

সম্ভবত, রজ্জাকের সঙ্গে তাঁর নৈকট্য বোঝাতে তিনি লিখতে চেয়েছিলেন রজ্জাক তাঁর অন্য মায়ের পেটে জন্মানো ভাইয়ের মতো। কিন্তু বদলে ইংরাজিতে লেখেন 'মাদার ফ্রম অ্যানাদার ব্রাদার'। অর্থাৎ, রজ্জাক তার অন্য ভাইয়ের মা!

আরও পড়ুন - উদ্বোধন হতে চলেছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের, উপস্থিত থাকছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

তারপর যা হওয়ার তাই হয়েছে। ভারত-পাকিস্তান দুই দেশের ভক্তরাই আকমল-কে যারপরনাই হেনস্থা করে চলেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে কেউ কেউ এটি সাজানো কিনা সেই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। বস্তুত, আকমলের টুইটার হ্যান্ডেলে পোস্টটি এখন আর দেখা যাচ্ছে না। তবে আকমল নিজে তো বটেই তিনি ছাড়াও বছরের পর বছর ধরে পাক ক্রিকেটারদের ভুল ইংরাজি হাসাহাসির কারণ হয়েছে। তাই এই ধরণের ভুল উমর আকমল করে থাকতে পারেন বলেই ধরে নিচ্ছে নেটিজেনরা।

আরও পড়ুন - বদলে গিয়েছে ভারত, নিউজিল্যান্ড-এ অতীত রেকর্ড নিয়ে উদ্বিগ্ন নন বিরাট

তবে যাবতীয় হাসি-উচ্ছ্বাস হারিয়ে গিয়েছে আকমলের জন্য। পাক জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির এক প্রশিক্ষক-কে অশালীন মন্তব্য করে নির্বাসিত হওয়ার পর্ব কাটিয়ে মাত্র কদিন আগেই মাঠে ফিরেছিলেন তিনি। কিন্তু, পিএসএল ২০২০ শুরু হওয়ার মাত্র কয়েক ঘন্টা আগে বৃহস্পতিবার সকালে আচমকা পিএসএল কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্স-এর নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার উমর আকমল-কে অবিলম্বে 'দুর্নীতি দমন বিধি' লঙ্ঘন-এর জন্য সাসপেন্ড করার কথা জানিয়েছে পিসিবি। ফলে পিএসএল-এ খেলা হবে না আকমলের। কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্স উমর আকমলের পরিবর্তের সন্ধান করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।