১৯ মে রাজ্যে শেষদফার ভোটগ্রহণ। এই দিন-ই দেশের সতেরতম লোকসভা নির্বাচনের অন্তিম দফা। আর সেই শেষদফা ভোটগ্রহণের ৩ দিন আগে-ই নির্বাচন কমিশন থেকে সবচেয়ে বড় ধাক্কাটা খেল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। কারণ বুধবার পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে লোকসভা নির্বাচনে তিনটি কড়া সিদ্ধাান্ত গ্রহণ করেছে। আর এই সিদ্ধান্তের দুটি সিদ্ধান্ত হল রাজীব কুমারকে দিল্লিতে রিপোর্টের জন্য পাঠানো এবং রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব অত্রি ভট্টাচার্য-কে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া। 

বুধবার সন্ধ্যায় নয়াদিল্লিতে সাংবাদিক সম্মেলনে বসে নির্বাচন কমিশন। আর সেই সাংবাদিক সম্মেলনেই বাংলা সম্পর্কে তিনটি নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়। সিবিআই-এর জেরার জেরে কলকাতা পুলিশের কমিশনার পদ থেকে রাজীব কুমার-কে সরিয়ে এডিজি সিআইডি পদে নিয়ে আসে মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের প্রশাসন। কমিশন বুধবার যে নির্দেশ জারি করেছে তাতে বৃহস্পতিবার বেলা ১০টার মধ্যে রাজীব কুমারকে নয়াদিল্লিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে রিপোর্ট করতে হবে। অন্যদিকে, স্বরাষ্ট্র সচিব অত্রি ভট্টাচার্য-কে আপাতত পদ থেকে সরে যেতে নির্দেশ দেয় কমিশন। লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতির সময় থেকেই সরকার বিরোধী দলগুলি রাজীব কুমার ও অত্রি ভট্টাচার্য-র বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে আসছিল। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, এঁদের সম্পর্কে অভিযোগ ছিল এবং সেই সঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে যে হিংসাত্মক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তার জেরেই এই সিদ্ধান্ত।