ফের নক্ষত্রপতন । চলচ্চিত্র জগতে দুঃসময় যেন আর কাটছে না। একের পর এক নক্ষত্রপতন হয়েই চলেছে। সিনেমাপ্রেমীদের জন্য অত্যন্ত দুঃসংবাদ। প্রয়াত হলেন  বিশ্ব বিখ্যাত অভিনেতা চ্যাডউইক বোসম্যান। মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের  'ব্ল্যাক প্যান্থার '।  মারণ রোগ ক্যান্সারেই মৃত্যু হয়েছে অভিনেতার। দীর্ঘ ৪ বছর ধরেই কোলন ক্যান্সারে ভুগছিলেন অভিনেতা। অবশেষে গতকালই যুদ্ধ শেষ হল চ্যাডউইক বোসম্যানের। মৃত্যুকালে অভিনেতার বয়স হয়েছিল ৪৩ বছর।

সূত্র থেকে জানা গেছে, লস অ্যাঞ্জেলসে নিজের বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন অভিনেতা। সেই সময়ে বাড়িতে তার স্ত্রী  টেলর সিমন লেডওয়ার্ড ও পরিবারের সকলেই তার পাশে ছিলেন। দীর্ঘ এতবছর ধরে শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে কখনও প্রকাশ্যে কিছু মুখ খোলেননি অভিনেতা। কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই নিজের মধ্যেই রোগটিকে রেখে দিয়েছিলেন অভিনেতা। তার মৃত্যুতে হলিউডই শুধু নয়, গোটা বিশ্বে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। আজ সকালেই 'ব্ল্যাক প্যান্থার ' অভিনেতা চ্যাডউইক বোসম্যানের টুইটার থেকেই এই দুঃসংবাদটি জানানো হয়েছে। 

 

 

 

যেখানে বলা হয়েছে,  'অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাতে হচ্ছে চ্যাডউইক আর নেই। ২০১৬ সাল থেকে দীর্ঘ ৪ বছর ধরে কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন অভিনেতা। স্টেজ ৪ পৌঁছে গিয়েই ৪ বছর ধরে লড়াই চালিয়ে গেছেন। তিনি ছিলেন সত্যিকারের যোদ্ধা।  তার পরিচয় তার চরিত্ররাই। তবে তার মধ্যে ব্ল্যাক প্যান্থার সিনেমা তার জীবনের বড় প্রাপ্তি '। একটি সাক্ষাৎকারে চ্যাডউইক  জানিয়েছিলেন 'ব্ল্যাক প্যান্থার ' চরিত্রের জন্য তিনি প্রার্থনা করতেন। কারণ এটি কৃষ্ণাঙ্গদের সুপারহিরো ছিল। এছাড়াও জ্যাকি রবিনসন, জেমস ব্রাউনের মতো বহুল চর্চিত চরিত্রেও তিনি অভিনয় করেছেন।