পরিচালকঃ মিখিল মুসেল
অভিনেতা-অভিনেত্রীঃরাজ কুমার রাও, মৌনি রায়, বোম্যান ইরানি

গল্পঃ রাঘু (রাজকুমার রাও) যে ব্যবসাতেই হাত দেন, সেই ব্যবসার ক্ষেত্রেই আর্থিক ক্ষতির মুখ দেখেন। একের পর এক এমনই পরিস্থিতির শিকার হতে হচ্ছে যখন তাঁকে, তখনই পরিস্থিতি বদলে যায় চীন সফরের পর। সেখান থেকেই নতুন ব্যবসার ভাবনা আর পরিকল্পনা নিয়ে ফেরেন তিনি। কিন্তু গল্পের মোড় ঘুয়ে যায় সেই দ্রব্য ব্যবহার করার পর এক ক্রেতার মৃত্যু হলে। 

অভিনয়ঃ এক কথায় বলতে গেলে ছবিটি একাই কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন রাজকুমার রাও। অনবদ্য অভিনয় থেকে শুরু করে পর্দায় উপস্থাপনা, চরিত্রটি যেন তাঁর কথা মাথায় রেখেই তৈরি করা হয়েছে। অন্যদিকে মৌনি নিজের একশো শতাংশ দিয়েছেন তাঁর চরিত্র পর্দায় ফুঁটিয়ে তুলতে। 

চিত্রনাট্যঃ ছবির চিত্রনাট্যে হাস্যরস থাকলেও এক সময় তা রহস্য রোমাঞ্চ ছবির আকার ধারণ করে। যদিও চিত্রনাট্য বেশ কিছু খামতি নজরে আসে। ছবিটিতে গল্প আরও বেশি জোড়ালো হতে পাড়ত। অন্যদিকে সমাজে বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রাসঙ্গিত এমন অনেক কিছু নিয়েই কথা বলা হয়েছে। 

সিনেম্যাটোগ্রাফিঃ ছবির সিনেম্যাটোগ্রাফি বেশ নজর কাড়ে। অনেক ধরনের ফ্রেম দেখা যায় ছবিতে। তবে কোথাও যেন একঘেয়েভাব নজরে আসে। গল্পের চাহিদা অনুযায়ী বেশ কিছু অংশে সিনেমাটোগ্রাফির বুনটের অভাব চোখে পড়ে। তবে গানের অংশে তা নিঃসন্দেহে অনবদ্য।  

পরিচালনাঃ মৃত্যু রহস্য সমাধানে ছবিটিতে বেশ দীর্ঘ করে তোলে। ফলে দর্শকদের মনোসংযোগ হারায়। গল্পে বেশ কয়েকটি জায়গায় খাপছাড়াভাব নজরে আসে। যদিও ছবিটির অধিকাংশ খামতি কাটিয়ে তোলে একাই রাজকুমার রাও। গল্পের দুই অধ্যায় খুব যত্নের সঙ্গে ফুঁটিয়ে তোলা হয়েছে ছবিতে।