গোয়া থেকে মহারাষ্ট্র-- নীতি আদর্শ বিসর্জন দিয়ে সরকার গঠন, এক ঝলকে দেখুন ১২টি নমুনা

First Published 4, Mar 2020, 6:59 PM

গোয়া থেকে মহারাষ্ট্র-- নীতি আদর্শ বিসর্জন দিয়েই সরকার গঠন করছে দেশের প্রথম সারির রাজনৈতিক দলগুলি। দেখে নিন তারই ১২টি ঝলক। 

২০১৭ সালে হয়েছিল গোয়া বিধানসভা নির্বাচন। কংগ্রেস পেয়েছিল ১৭টি আসন বিজেপি দখল করেছিল ১৩টি। বাকি ৩টি আসন দখল করেছিল নির্দল প্রার্থীরা।

২০১৭ সালে হয়েছিল গোয়া বিধানসভা নির্বাচন। কংগ্রেস পেয়েছিল ১৭টি আসন বিজেপি দখল করেছিল ১৩টি। বাকি ৩টি আসন দখল করেছিল নির্দল প্রার্থীরা।

কিন্তু তারপরেও ৪০ আসনের গোয়া বিধানসভার দখল নিতে পারেনি কংগ্রেস। ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে পারেনি কংগ্রেস।

কিন্তু তারপরেও ৪০ আসনের গোয়া বিধানসভার দখল নিতে পারেনি কংগ্রেস। ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে পারেনি কংগ্রেস।

কংগ্রেসের বিধায়ক  ও নির্দল বিধায়কদের সমর্থন নিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিল বিজেপি। প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর পদ ছেড়ে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন মনোহর পারিক্কর

কংগ্রেসের বিধায়ক ও নির্দল বিধায়কদের সমর্থন নিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিল বিজেপি। প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর পদ ছেড়ে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন মনোহর পারিক্কর

কম জলঘোলা হয়নি কর্ণাটক বিধানসভা দখল নিয়েও। ১১৭টি আসন দখল করেও প্রথম দফায় সরকার গড়তে পারেনি বিজেপি।

কম জলঘোলা হয়নি কর্ণাটক বিধানসভা দখল নিয়েও। ১১৭টি আসন দখল করেও প্রথম দফায় সরকার গড়তে পারেনি বিজেপি।

জনতা দল সেকুলারের সঙ্গে হাত মিলিয়ে সংরকার গঠন করেছিল কংগ্রেস। কংগ্রেসের দখলে ছিল ৬৪ আসন। ৩৪টিআসন পেয়েছিল জেডিএস।

জনতা দল সেকুলারের সঙ্গে হাত মিলিয়ে সংরকার গঠন করেছিল কংগ্রেস। কংগ্রেসের দখলে ছিল ৬৪ আসন। ৩৪টিআসন পেয়েছিল জেডিএস।

সেই প্রথম ভারত দেখেছিল রিসর্ট রাজনীতি। কংগ্রেস, বিজেপি,জেডিএস নিজেদের দলের সব বিধায়কদেরই রেখেছিল রিসর্ট বন্দি করে।

সেই প্রথম ভারত দেখেছিল রিসর্ট রাজনীতি। কংগ্রেস, বিজেপি,জেডিএস নিজেদের দলের সব বিধায়কদেরই রেখেছিল রিসর্ট বন্দি করে।

তবে হাল ছাড়েনি বিজেপি। বিধায়করা দল বদল করায় এক বছর ৬১ দিন মুখ্যমন্ত্রীর পদে থাকার পর পদত্যাগ করেন এইচ ডি কুমারাস্বামী। মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসেন বিজেপির বিএস ইয়েদুরাপ্পা।

তবে হাল ছাড়েনি বিজেপি। বিধায়করা দল বদল করায় এক বছর ৬১ দিন মুখ্যমন্ত্রীর পদে থাকার পর পদত্যাগ করেন এইচ ডি কুমারাস্বামী। মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসেন বিজেপির বিএস ইয়েদুরাপ্পা।

বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভোটে লড়েছিল শিবসেনা। কিন্তু সরকার গঠন করে কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে। কর্ণাটকের মত মহারাষ্ট্রও দেখেছিল রিসর্ট রাজনীতি।

বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভোটে লড়েছিল শিবসেনা। কিন্তু সরকার গঠন করে কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে। কর্ণাটকের মত মহারাষ্ট্রও দেখেছিল রিসর্ট রাজনীতি।

বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভোটে লড়েছিল শিবসেনা। কিন্তু সরকার গঠন করে কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে। কর্ণাটকের মত মহারাষ্ট্রও দেখেছিল রিসর্ট রাজনীতি।

বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভোটে লড়েছিল শিবসেনা। কিন্তু সরকার গঠন করে কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে। কর্ণাটকের মত মহারাষ্ট্রও দেখেছিল রিসর্ট রাজনীতি।

মহারাষ্ট্রের সরকার গড়তে সময় লেগেছিল এক মাসেরও বেশি। ২১ অক্টোবর. ২০১৯ ফল ঘোষণা হয়েছিল মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনের। মুখ্যমন্ত্রী হিসেব উদ্ধব ঠাকরে শপথ নিয়েছিলেন ২৪ নভেম্বর।

মহারাষ্ট্রের সরকার গড়তে সময় লেগেছিল এক মাসেরও বেশি। ২১ অক্টোবর. ২০১৯ ফল ঘোষণা হয়েছিল মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনের। মুখ্যমন্ত্রী হিসেব উদ্ধব ঠাকরে শপথ নিয়েছিলেন ২৪ নভেম্বর।

ক্ষমতা দখলে মরিয়া ছিল বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মাত্র তিন দিনের জন্য মধ্য রাতে শপথ গ্রহণ করেছিলেন দেবেন্দ্র ফড়ণবীশ।

ক্ষমতা দখলে মরিয়া ছিল বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মাত্র তিন দিনের জন্য মধ্য রাতে শপথ গ্রহণ করেছিলেন দেবেন্দ্র ফড়ণবীশ।

লালু প্রসাদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে বিহারের ক্ষমতা দখল করেছিলেন নীতিশ কুমার। কিন্তু মাঝপথেই আরজেডির সঙ্গ ত্যাগ করে হাত মেলান বিজেপির সঙ্গে।

লালু প্রসাদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে বিহারের ক্ষমতা দখল করেছিলেন নীতিশ কুমার। কিন্তু মাঝপথেই আরজেডির সঙ্গ ত্যাগ করে হাত মেলান বিজেপির সঙ্গে।

এখনও দিল্লি থেকে নিয়ন্ত্রিত হয় ভারতের রাজনীতি। গোয়া থেকে মহারাষ্ট্র-- নীতি আদর্শ বিসর্জন দিয়েই সরকার গঠন করছে দেশের প্রথম সারির রাজনৈতিক দলগুলি।

এখনও দিল্লি থেকে নিয়ন্ত্রিত হয় ভারতের রাজনীতি। গোয়া থেকে মহারাষ্ট্র-- নীতি আদর্শ বিসর্জন দিয়েই সরকার গঠন করছে দেশের প্রথম সারির রাজনৈতিক দলগুলি।

loader