জোর গুজব ছিল ন্যুনতম সাধারণ কর্মসূচি বা সিএমপি-তে কংগ্রেস দলকে 'ধর্মনিরপেক্ষ' শব্দটি বাদ দিতে বাধ্য করেছে শিবসেনা। কিন্তু বাস্তবে দেখা গেল, তা সত্যি নয়। ধর্মনিরপেক্ষ শব্দটি মহারাষ্ট্রে 'মহা বিকাশ আঘাড়ি' অর্থাৎ শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস'এর আসন্ন জোট সরকারের ন্যুনতম সাধারণ কর্মসূচিতে দুইবার হলেও রয়েছে। এছাড়া কৃষকদের অবিলম্বে সহায়তা, কৃষি ঋণ মকুব করা-সহ বেকারত্ব দূর, মহিলাদের নিরাপত্তা, শিক্ষা, নগরোন্নয়ন, স্বাস্থ্য, শিল্প, সামাজিক ন্যায়, পর্যটন সংক্রান্ত বেশ কিছু কর্মসূচির কথা ঘোষণা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাতটায় মুম্বইয়ের শিবাজি পার্কে মুম্বইয়ের প্রথম শিবসেনা মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথগ্রহণ করবেন উদ্ধব ঠাকরে। তাঁর বেশ কয়েক ঘন্টা আগেই মহা বিকাশ আঘাড়ি-র ন্যুনতম কর্মসূচি প্রকাশ করা হল। সেখানে দেখা যাচ্ছে শুরুতেই প্রস্তাবনা অংশেই ধর্মনিরপেক্ষ কথাটি দুইবার এসেছে। এছাড়া চারপাতার কর্মসূচিতে শব্দটি আর নেই। প্রস্তাবনা অংশে ভারতীয় সংবিধানের ধর্মনিরপেক্ষ মূল্য়বোধ রক্ষা করার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া, সমাজের ধর্মনিরপেক্ষতার বাঁধন ছিঁড়ে দিতে পারে এমন বিতর্কিত দেশ বা রাজ্যের বিষয়ে তিন দল আলোচনার ভিত্তিতে মতামত জানাবে বলে জানানো হয়েছে।

প্রথম থেকেই শিবসেনার উগ্র হিন্দুত্ববাদি ভাবমূর্তির জন্যই তাদের সঙ্গে জোট গড়ে সরকার গঠনে আপত্তি জানিয়েছিলেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী। পরে রাজ্যের নেতাদের আবেদন ও শরদ পওয়ারের আশ্বাস পেয়ে মত দেন বলে জানা গিয়েছে। মঙ্গলবার রাতের বৈঠকেই তিন দলের ন্যুনতম সাধারণ কর্মসূচি তৈরি হয়েছিল। তারপর থেকেই সোনা যাচ্ছিল সেখানে ধর্মনিরপেক্ষ শব্দটি থাকা নিয়ে চরম আপত্তি ছিল শিবসেনার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বোঝা যাচ্ছে মহারাষ্ট্রে বিজেপি-কে আটকাতে শিবসেনাকে কংগ্রেসের 'ধর্মনিরপেক্ষতা'-র দাবি গিলতেই হয়েছে।

কর্মসূচিতে শুরুতেই অকাল বর্ষণে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সহায়তার কথা বলা হয়েছে। এর সঙ্গে কৃষি ঋণ মকুব, বাজ সুরক্ষা বিমা, ফসলের ন্যায্য মূল্য সুরক্ষিত করা ও পর্যাপ্ত সেচের জলের ব্যবস্তা করার কথা বলা হয়েছে। বেকারত্ব দূরীকরণের লক্ষ্যে বেকারদের ফেলোশিপ প্রদান ও শূন্যপদে নিয়োগে স্থানীয়দের অগ্রাধিকারের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। নারী সুরক্ষা থেকে মহিলাদের আবাসন, গরীবব মেয়েদের বিনামূল্যে শিক্ষা, আশাকর্মীদের সাম্মানিক বৃদ্ধির কথা বলা হয়েছে।   

এর সঙ্গে সঙ্গে, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, নগর ও গ্রামোন্নয়ন, শিল্পের বিকাশ, সামাজিক ন্যায়বিচার সংক্রান্ত একগুচ্ছ কর্মসূচি রয়েছে, মহা বিকাশ আঘাড়ির। তবে কোথাও সাভারকরকে ভারতরত্ন দেওয়ার দাবি তোলার মতো শিবসেনার নির্বাচন পূর্ববর্তী প্রতিশ্রুতিগুলি, যা নিয়ে কংগ্রেস-এনসিপি-'র সঙ্গে বিরোধ হতে পারত, সেই ধরণের কর্মসূচি নেই।