কেরলের প্রায় পনেরোশো কেক প্রস্তুতকারক ও রাঁধুনির ৪ ঘন্টার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় তৈরি হল বিশ্বরেকর্ড। বিশ্বের দীর্ঘতম কেক বানালেন তাঁরা, যা দৈর্ঘে বলা হচ্ছে প্রায় ৬.৫ কিলোমিটার।  সম্প্রতি কেরলের ত্রিশুরে একটি একটি মেলার মাঠে হাজার হাজার টেবিল সাজিয়ে এই কেকটির প্রদর্শনী করা হয়। শুধু মাঠে আঁটেনি। কেকটি রাখতে পাশের রাস্তাগুলিও ব্যবহার করতে হয়েছে।

কেকটি ভ্যানিলা ফ্লেভারের। ৪ ইঞ্চি চওড়া এবং ৪ ইঞ্চিই মোটা এই কেকটির ওজন প্রায় ২৭,০০০ কিলোগ্রাম। এই সাপের মতো দেখতে কেকটির উপর চকোলেট চিপস দিয়ে সাজানো হয়। কেকটি তৈরি করতে প্রায় ১২,০০০ কেজির চিনি এবং ময়দা ব্যবহার করা হয়েছে।  

এই রেকর্ড-ভাঙা কেকটি তৈরি করার উদ্যোগ নেয়, কেরলের বেকার্স অ্যাসোসিয়েশন। তাদের তৈরি কেকটি দেখতে ভিড় জমান বিশাল সংখ্যক জনতা। অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নওশাদ জানিয়েছেন, গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস প্রাথমিক দেখায় কেকটি ৬৫০০ মিটার হবে বলে জানিয়েছিল। তবে পরে তারা জানায় কেকটি ৫.৩ কিলোমিটার দীর্ঘ।

২০১৮ সালে চিনের জিক্সি কাউন্টিতে একটি এই রকম দীর্ঘ কেক বানানো হয়েছিল। এর আগে অবধি সেটিকেই বিশ্বের দীর্ঘতম কেক হিসেবে গন্য করা হত। তার দৈর্ঘ ছিল প্রায় ৩.২ কিলোমিটার। নওশাদ আরো জানিয়েছেন কেরলের বেকার-দের দক্ষতাকে বিশ্বের সামনে তুলে ধরাই ছিল তাদের লক্ষ্য। তবে বিশ্বরেকর্ড মাথায় থাকলেও কেকটির স্বাদ নিয়ে কোনও রকম আপোস করা হয়নি। একই সঙ্গে কেকটি তৈরির ক্ষেত্রে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধিও মেনে চলা হয়েছে বলে দাবি করেছেন নওশাদ।