Asianet News BanglaAsianet News Bangla

CRPF Camp Firing-ক্যাম্পে আচমকাই গুলি চালাল জওয়ান, মৃত্যু চার সিআরপিএফ কর্মীর

সিআরপিএফ ক্যাম্পের মধ্যে সহকর্মীর গুলিতে মৃত্যু হল চার সিআরপিএফ জওয়ানের। গুরুতর আহত হয়েছেন আরও তিন জন।

4 CRPF personnel killed after jawan opens fire at camp in Chhattisgarh  bpsb
Author
Kolkata, First Published Nov 8, 2021, 8:25 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

সোমবারের সকালে বড়সড় দুর্ঘটনা। সিআরপিএফ(CRPF camp) ক্যাম্পের মধ্যে সহকর্মীর গুলিতে(jawan opened fire at the camp) মৃত্যু হল চার সিআরপিএফ জওয়ানের (Four jawans)। গুরুতর আহত হয়েছেন আরও তিন জন (3 injured)। ছত্তিশগড়ির সুকমা জেলায় এই ঘটনা ঘটেছে। সুকমা জেলার মড়াইগুড়া থানার অন্তর্গত সিআরপিএফ ক্যাম্পে আচমকা গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। 

পরে জানা যায় সিআরপিএফ ৫০ ব্যাটালিয়ানের এক জওয়ান গুলি চালাতে শুরু করেন আচমকাই। এই গুলি চালনার ঘটনাতেই মৃত্যু হয় চার জওয়ানের। মৃতরা হলেন ধনজি, রাজীব মণ্ডল, রাজমণি কুমার যাদব ও ধর্মেন্দ্র কুমার। এঁদের মধ্যে রাজীব মণ্ডল পশ্চিমবঙ্গের নদিয়া জেলার দেবগ্রামের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। জখম তিন জওয়ানের নাম হল ধনঞ্জয় সিং, ধর্মাত্মা কুমার, রঞ্জন মহারানা।

সুকমা জেলার লিগমাপল্লী গ্রামে সিআরপিএফের ৫০তম ব্যাটেলিয়নের ক্যাম্পে এ দিন ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ এই ঘটনাটি ঘটে। নিজের কাছে থাকা একে-৪৭ রাইফেল দিয়েই সহকর্মীদের উদ্দেশে গুলি চালিয়ে দেন ওই জওয়ান, এমনই জানিয়েছেন বস্তার রেঞ্জের আইজি সুন্দররাজ পি। অভিযুক্ত জওয়ানকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। অন্য দিকে, আহতদের স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। তাঁরা বর্তমানে বিপন্মুক্ত।

সিআরপিএফের ক্যাম্পে এই ধরনের ঘটনা নতুন কিছু নয়। অনেক ক্ষেত্রে অভিযুক্ত জওয়ান মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত থাকেন বলে জানা যায়। সেখান থেকেই এই ধরনের ঘটনা তিনি ঘটিয়ে ফেলেন। সোমবার ভোররাতের ঘটনার পেছনেও এই রকম কিছু কারণ থাকতে পারে বলে মনে করছে পুলিশ। সূত্রে পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে ধৃতের নাম ঋতেশ রঞ্জন। কী কারণে হামলা তা খতিয়ে দেখতে উচ্চপর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, ঘটনার পরেই মৃত ও আহত সবাইকেই হেলিকপ্টারে করে নিয়ে যাওয়া হয় তেলেঙ্গানার ভদ্রাচলম হাসপাতালে। সেই জায়গায় চারজনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। বাকি তিনজনের চিকিৎসা শুরু হয় হাসপাতালে। সব মিলিয়ে সাতজনের বুলেটের আঘাত লেগেছিল। এঁদের মধ্যে চারজনের মৃত্যু হয়।

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios