গুরুতর অসুস্থ দক্ষিণী সুপারস্টার রজনীকান্ত। ৭০ বছরের অভিনেতাকে ভর্তি করা হয়েছে হায়দরাবাদের জুবিলি হিলস অ্যাপোলো হাসপাতালে। তাঁর রক্তচাপ ওঠানামা করছে বলে জানা গিয়েছে। দিনকয়েক আগেই তিনি যে চলচ্চিত্রের শুটিং-এ ছিলেন, তার সেটের আট কুশলীর করোনভাইরাসর পরীক্ষার ফল ইতিবাচক এসেছিল। তাই থালাইভা-ও করোনা আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন, বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এদিকে ৩১ ডিসেম্বরই নতুন রাজনৈতিক দল খোলার কথা ছিল তাঁর। এই অসুস্থতায় সেই পরিকল্পনা ধাক্কা খেতে পারে।

গত ১০ দিন ধরেই হায়দরাবাদেই শুটিং করছিলেন থালাইভা। গদত কয়েকদিনে সেই ফিল্মের সেটে অন্তত ৮ জন করোনা আক্রান্ত হন। তারপর গত ২২ ডিসেম্বর রজনীকান্তেরও করোনা পরীক্ষা করা হয়েছিল, কিন্তু ফল নেতিবাচক আসে। তারপরও ঝুঁকি না নিয়ে তিনি স্ব-বিচ্ছিন্নতায় ছিলেন এবং ডাক্তাররাও তাঁর স্বাস্থ্য বিষয়ে পর্যবেক্ষণ জারি রেখেছিলেন।

পর্যবেক্ষণকারী চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, রজনীকান্তের শরীরে কোভিডের কোনও উপসর্গ না থাকলেও, তাঁর রক্তচাপ উল্লেখযোগ্যভাবে ওঠানামা করছে।    সেই সঙ্গে শরীরে রয়েছে অসম্ভব ক্লান্তি। সেটা কেন হচ্ছে, তা জানতেই কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা ও আরও পর্যবেক্ষণের প্রয়োজন। তার জন্যই তাঁকে শুক্রবার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে হায়দরাবাদের অ্যাপোলো হাসপাতালের ডাক্তাররা জানিয়েছেন।

সম্প্রতি, ফিল্মের পাশাপাশি রাজনৈতিক আঙিনাতেও পা রাখার পরিকল্পনা জানিয়েছিলেন রজনীকান্ত। তবে কোনও প্রচতিষ্টিত রাজনৈতিক দলে যোগ নয়, নিজের পৃথক দল গড়ার কথা জানিয়েছিলেন দক্ষিণী সুপারস্টার। আগামী বছরই তামিলনাড়ু বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে জানুয়ারী মাসেই নতুন রাজনৈতিক দল কাজ করা শুরু করবে, বলে জানিয়েছিলেন। ৩১ ডিসেম্বরই সেই দলের নাম ঘোষণা করার কথা রয়েছে। তবে তাঁর অসুস্থতা সেই পরিকল্পনায় প্রতিবন্ধক হয়ে উঠতে পারে।

রাজনীতিতে আসার পরিকল্পনা রজনীকান্তের নতুন নয়। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরেই প্রথম এই ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু, সেইবার বাধ সেধেছিল তাঁর স্বাস্থ্য। চিকিৎসকরা জানিয়ে দিয়েছিলেন ব্যস্ত রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়ালে তাঁর স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটতে বাধ্য। চলতি বছরের শুরুতেও ফের একবার রাজনীতিতে পা রাখার জল্পনা ভাসিয়েছিলেন রজনী। বাধা দিয়েছিল কোভিড। এবার আবার বাধা পড়তে পারে।