জম্মু ও কাশ্মীরের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করল কেন্দ্রীয় সরকার। দীর্ঘ ১৮ মাস পর উপত্যকায় চালু করা হচ্ছে ৪জি বা 4G ইন্টারনেট পরিষেবা। জম্মু ও কাশ্মীরের প্রশাসনের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি রোহিত কানসান সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা  দিয়ে জানিয়েছে, পুরো জম্মু ও কাশ্মীরেই ফোরজি মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা পুণরুদ্ধার করা হয়েছে। 

২০১৮ সালের ৫ অগাস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের জন্য সংবিধানের বিশেষ ধারা ৩৭০  অবলুপ্ত করা হয়েছিল। সেই সময় জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদাও অবলুপ্ত হয়। জম্মু ও কাশ্মীরকে দুটি কেন্দ্র শাসিত রাজ্যে পরিণত করা হয়ে। একটি থাকে জম্মু ও কাশ্মীর, অন্যটি লাদাখ। সেই সময় জম্মু ও কাশ্মীরে ব্যপক বিক্ষোভ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গোটা উপত্যকায় কার্ফু জারি করা হয়েছিল। একই সঙ্গে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল দ্রুতগতির ইন্টারনেট পরিষেবা। সেই সময় কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদীদের আক্রমণ প্রতিহত করতে ও বিচ্ছিন্নতাবাদী শক্তিগুলিকে রুখতেই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। 

গতবছর অগাস্ট মাসে কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্টে জানিয়েছিল, জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট পুনরুদ্ধারের বিষয়টি তদন্তকারী একটি বিশেষ কমিটি খতিয়ে দেখছে। একই সঙ্গে ফোরজি ইন্টারনেট পরিষেবা ব্যবহারের অনুমতি দেওয়ার বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তারপরই১৬ অগাস্ট গান্ডারবাল ও উধমপুর জেলায় ফোরজি ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করা হয়েছিল। বাকি জেলাগুলিতে ইন্টারনেটের গতি ২জিতে সীমাবদ্ধ ছিল।