বিমান পরিষেবা চালু হতেই একের পর এক বিমানে হানা দিচ্ছে করোনা। শনিবার দিল্লি থেকে মস্কোর উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিল এয়ার ইন্ডিয়ার এয়ারবাস এ-৩২০ নিও (ভিটি-এক্সআর)। কিন্তু, বিমানটি উড়ে যাওয়ার পর বিমানহন্দরে থাকা গ্রাউন্ড টিম বুঝতে পারে পাইলট করোনভাইরাস ইতিবাচক। তাই মাঝপথ থেকেই ফিরিয়ে আনা হল বিমানটিকে।

এয়ারইন্ডিয়ার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, প্রতিটি বিমানের চালক ও অন্যান্য কর্মীদের উড়ানের ৭২ ঘন্টা আগে করোনা পরীক্ষা করা হয়। ওই চালকেরও পরীক্ষা করা হয়েছিল। কিন্তু প্রাক-উড়ান সেই পরীক্ষার প্রাথমিক রিপোর্টে ত্রুটি ছিল। ওই চালকের রিপোর্ট এসেছিল নেতিবাচক। কিন্তু, বিমানটি উড়ে যাওয়ার পর চলন্ত বিমানেই চালক অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তারপরই তাঁকে ফের ডেকে আনা হয়।

তবে একটাই বাঁচোয়া বিমানটিতে কোনও যাত্রী ছিল না। এয়ার ইন্ডিয়ার এক প্রবীণ আধিকারিক জানিয়েছেন, এ-৩২০ এয়ারবাসটি বন্দে ভারত মিশনের আওতায় আটকে পড়া ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনার জন্যই মস্কো যাচ্ছিল। তাই দিল্লি থেকে রওণা দেওয়ার সময় বিমানটিতে কোনও যাত্রী ছিল না। ওই কর্তা আরও জানিয়েছেন, বিমানটি উজবেকিস্তানের আকাশসীমা পৌঁছে গিয়েছিল। সেই সময়ই খবর আসে বিমানের এক চালকের কোভিড-১৯ পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

সঙ্গে সঙ্গে বিমানের ক্রু সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। জানা যায় ওই চালকও অসুস্থ বোধ করছেন। এরপরই বিমানটিকে অবিলম্বে ফিরে আসার নির্দেশ দেওয়া হয়। শনিবার বেলা সাড়ে ১২ টা নাগাদ বিমানটি ফের দিল্লির ান্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। ওই চালককে কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর বাকি সকল ক্রু সদস্যকে কোয়ানেন্টাইন করা হয়েছে। এয়ার ইন্ডিয়ার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এরপরও বন্দে ভারত মিশন বন্ধ থাকবে না। আটকে পড়া ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে আরও একটি বিমান মস্কোয় পাঠানো হবে।