আত্মনির্ভর ভারত ৩.০ প্যাকেজে কেন্দ্রীয় সরকার চাকুরিজীবীদের দিকেই বিশেষ নজর দিয়েছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন জানিয়েছেন, নতুন কর্মসংস্থান তৈরির ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। চালু করা হয়েছে কর্ম সংস্থান প্রকল্প। এই প্রকল্পের আওতায় চলতি বছর পয়লা মার্চ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যাঁরা কাজ হারিয়েছেন তাঁদের বিশেষ সুবিধে দেওয়া হবে। এই প্রকল্প চালু হয়েছে চলতি বছর পয়লা অক্টোবর থেকে। সেই কারণেই  আত্মনির্ভর রোজগার যোজনা ঘোষণা করা হচ্ছে। এইসমস্ত কর্মীদের বেতন হতে হবে ১৫ হাজারের নিচে। নতুন কর্মী নিয়োগ করলে বিশেষ সুবিধে পাবে সংস্থাগুলিও। 


সংস্থাগুলিকে ইপিএফও-র সুবিধে পাওয়ার জন্য দুটি শর্ত দেওয়া হয়েছে। সেগুলি হল  যে সব সংস্থার ৫০ জন কর্মী রয়েছে সেই সব সংস্থাকে মূলত ২জন নতুন কর্মীকে কাজে নিতে হবে। দ্বিতীয়ত ৫০ জনের বেশ কর্মী থাকলে নতুন কর্মীর সংখ্যা হতে হবে ৫। পয়লা অক্টোবর থেকেই নতুন এই নিয়ম কার্যকর হবে। আর এই যোজনা চালু থাকবে ২০২১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। 

দুবছরের জন্য কর্মীদের ভর্তুকি দেবে কেন্দ্র। যেসংস্থাগুলিতে ১হাজার কর্মী রয়েছে তাঁদের ক্ষেত্রে ১২ শতাংশ অর্থদিতে হবে কর্মীদের। ১২ শতাংশ অর্থ দিতে হবে সংস্থাকে। আর২৪ শতাংশ অর্থ দেবে কেন্দ্রীয় সরকার। আর যেসব সংস্থার ১ হাজারের কম কর্মী রয়েছে সেগুলির ক্ষেত্রে কর্মীদের ১২ শতাংশ ভর্তুকি কেন্দ্র দিয়ে দেবে। কর্মীদের আধারের সঙ্গে এইপিএফও অ্যাকাউন্ট জুড়ে দিতে হবে। ত

এদিন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ক্রেডিট লাইনের কথাও ঘোষণা করেন। তিনি বলেন সময়সীমা বাড়িয়ে ২০২১ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ক্ষুদ্র ছোট ও মাঝারি শিল্পের জন্য এই ঋণের ঘোষণা করা হয়েছিল।