ছোট এবং মাঝারি শিল্পের উপরে জোর দিতে হবে। বাড়াতে হবে বেসরকারি বিনিয়োগ। আর্থিক বৃদ্ধির হার এবং কর্মসংস্থান বাড়াতে এই সুপারিশই করেছিলেন প্রধান আর্থিক উপদেষ্টা কৃষ্ণমূর্তি সুব্রহ্মণ্যন। বেসরকারি সংস্থাগুলির উপর থেকে করের বোঝা কমানো আবার একই সঙ্গে বাণিজ্যিক কর আদায় বাড়াতে বড় পদক্ষেপ নিল কেন্দ্রীয় সরকার। বাণিজ্যিক করের ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় বাজেটে বড়সড় ছাড়ের ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ।

আরও পড়ুন- মধ্যবিত্তের আশা পূরণ করলেন না নির্মলা, কর কাঠামো অপরিবর্তিতই

এতদিন ২৫০ কোটি টাকা পর্যন্ত বার্ষিক লেনদেনে ২৫ শতাংশ কর দিতে হতে হত বাণিজ্যিক সংস্থাগুলিকে। তার উপরে লেনদেন হলে ৩০ শতাংশ কর দিতে হত। এ দিন নির্মলা সীতারমণ জানিয়েছেন, ২৫০ কোটি টাকা নয়, এবার থেকে বার্ষিক লেনদেন ৪০০ কোটি টাকা পর্যন্ত লেনদেন হলেও ২৫ শতাংশ হারেই কর দিতে হবে সংস্থাগুলিকে। এর ফলে দেশের ৯৯ শতাংশ সংস্থাই এই কর কাঠামোর মধ্যে চলে আসবে বলে দাবি করেছেন অর্থমন্ত্রী। 

শিল্প মহল মনে করছে, এর ফলে সরকার যেমন বেসরকারি সংস্থাগুলির উপর থেকে করের বোঝা কমালো, সেরকমই করের বোঝা কমে যাওয়ায় কর ফাঁকির প্রবণতাও কমবে বলে মনে করা হচ্ছে।