সবকিছু ঠিকঠাকই চলছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে যেন ওলটপালট হয়ে গেল সবকিছু। সবাই যখন ভাবছেন, ইতিহাস সৃষ্টি শুধু সময়ের অপেক্ষা, ঠিক তখনই ল্যান্ডার বিক্রমের থেকে সঙ্কেত পাওয়া বন্ধ হয়ে গেল। ফলে চাঁদে অবতরণের ঠিক আগেই নির্দিষ্ট পথ থেকে হারিয়ে গেল ল্যান্ডার বিক্রম। 

ইসরো থেকে চন্দ্রযানের সফল অবতরণ দেখতে হাজির ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। হিসেব মতো ভারতীয় সময় রাত ১.৫২ মিনিটে চাঁদে অবতরণের কথা ছিল ল্যান্ডার বিক্রমের। কিন্তু তার  পরে প্রায় পনেরো মিনিট কেটে গেলেও বিক্রমের অবতরণের কোনও খবর পাওয়া যায়নি। রাত ১.৫২ মিনিটে বিক্রমের একটি ছবি তুলে পাঠানোর কথা ছিল। ইসরোর চেয়ারম্যানকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে গিয়ে কিছু বলতেও দেখা যায়।  ফলে, উদ্বেগ আরও বেড়ে যায়। 

ইসরোর চেয়ারম্যান কে সিভন জানান, চাঁদের মাটি থেকে বিক্রম যখন ২.১ কিলোমিটার উপরে, তখন থেকেই ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ইসরোর। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হয় বিক্রম ক্র্যাশ ল্যান্ডিং করেছে। নয়তো কোনওভাবে ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে রেডিও কমিউনিকেশন বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে ইসরোর। কোনওভাবে সেই যোগাযোগ পুনর্স্থাপন করার চেষ্টা চালাচ্ছেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা। কিন্তু যত সময় যাচ্ছে, সেই আশা ততই ক্ষীণ হচ্ছে।