সোমবার সকলে লাদাখের  চুমার-ডেমচক এলাকা থেকে ভারতীয় সেনার হাতে আটক হল এক চিন সেনা সদস্য। প্রাথমিক খবর অনুসারে, পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) ওই সেনার কাছ থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নাগরিক ও সামরিক নথি পাওয়া গিয়েছে। সেগুলি সে কোথায় কী উদ্দেশ্যে নিয়ে যাচ্ছিল, তার তদন্ত করা হচ্ছে। ওই চিন সেনা সদস্যকে জিজ্ঢাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

প্রাথমিক খবর অনুযায়ী, আটক ওই চিন সেনা সদস্যের নাম কর্পোরাল ওয়াং ইয়া লং। সে পিএলএ-র ষষ্ঠ মোটরসাইজড ইনফ্যান্ট্রি বিভাগের সৈনিক। সেনা সূত্রে খবর, সে দাবি করেছে অজান্তেই সে ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেছিল। তবে কোনও গোপন অভিযানে তাকে লাদাখের ওই এলাকায় পাঠানো হয়ে থাকতে পারে বলে মনে করছে ভারতীয় বাহিনী। তাঁর কাছ থেকে পাওয়া নাগরিক ও সামরিক নথিগুলির প্রত্যেকটি খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখা হচ্ছে।

ভারতীয় সেনাবাহিনী জানিয়েছে, পিএলএর ওই সৈনিককে চরম উচ্চতা এবং কঠোর জলবায়ুর হাত থেকে রক্ষা করতে অক্সিজেন, খাবার এবং উষ্ণ পোশাক এবং চিকিত্সা সহায়তা দেওয়াহয়েছে। নিখোঁজ সৈনিকের সন্ধানের জন্য পিএলএর কাছ থেকো একটি অনুরোধও পাওয়া গিয়েছে। সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ওই চিনা সেনা সদস্য়ের জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হলে যথাযথ পদ্ধতি অনুসরণ করে প্রতিষ্ঠিত প্রোটোকল অনুযায়ী তাকে চিনা সেনাবাহিনী হাতে তুলে দেওয়া হবে।

গত মে মাস থেকেই সীমান্ত নিয়ে, বিশেষ করে লাদাখ এলাকায় চিন ও ভারতের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা রয়েছে। কমান্ডার পর্যায়ে সাত-সাতটি বৈঠক হয়ে গিয়েছে। অষ্টম বৈঠক চলতি সপ্তাহেই হওয়ার কথা। দুই দেশই উত্তেজনার আঁচ কমাতে সেনা প্রত্যাহারের কথা বললেও শীতকালের কঠিন আবহাওয়ার সুযোগ নিয়ে চিন সেনা ফের ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢুকে আসতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেই মতো ইউরোপ ও আমেরিকা থেকে শীতের পোশাক ও অন্যান্য সরঞ্জাম সংগ্রহ করছে ভারতীয় সেনা। এরই মধ্যে এই একজন চিন সেনার অনুপ্রবেশ যতেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।