রবিবার ভারতে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গেল। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী এদিন সকালে ভারতে করোনাভাইরাস সংক্রমণে আক্রান্তের সংখ্যা ১০৭-এ পৌঁছল। এতদিন দক্ষিণের রাজ্য কেরবলেই আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি ছিল। কিন্তু এখন, কেরল-কে ছাপিয়ে এই বিষয়ে উপরে উঠে এসেছে মহারাষ্ট্র। এই রাজ্যে এই মুহূর্তে আক্রান্ত হয়েছেন ৩১ জন। তবে কোভিড-১৯ রোগে ভারতে মৃত্যুর সংখ্যা ২-ই রয়েছে - একজন কর্নাটকের ও অপরজন দিল্লির। মহারাষ্ট্রে এক কোভিড-১৯ আক্রান্ত সন্দেহভাজনেরও মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু, তাঁর নমুনা পরীক্ষার ফল এখনও হাতে আসেনি।   

এই ১০৭ জন আক্রান্তের মধ্যে ১৭ জন বিদেশি নাগরিক। আর দশজন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে ছাড়া পেয়ে গিয়েছেন। ভারত ইতিমধ্যেই করোনাভাইরাসকে একটি ঘোষিত বিপর্যয় বলেছে। কেন্দ্রীয় সরকার ৩০ জুন অবধি ফেস মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারদের প্রয়োজনীয় পণ্য হিসাবে ঘোষণা করেছে। প্রয়োজনীয় পণ্য আইনের অধীনে রাজ্যগুলি এই পণ্য়গুলির উৎপাদন বাড়ানোর নির্দেশ দিতে পারে।

অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী করোনভাইরাস মোকাবিলার যৌথ কৌশল গঠনের জন্য সার্ক অন্তর্ভুক্ত দেশের রাষ্ট্রনেতাদের নিয়ে একটি ভিডিও কনফারেন্স-এর আহ্বান করেছিলেন। রবিবার সন্ধ্যায় সেই ভিডিও কনফারেন্স হওয়ার কথা। শুক্রবারই ছয় সার্ক দেশের শীর্ষনেতারা কোভিড -১৯ মোকাবিলায় নরেন্দ্র মোদীর এই পরামর্শের সঙ্গে একমত হয়েছিলেন। শনিবার পাকিস্তান-ও ঘোষণা করে যে তারা এই ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেবে।