প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এমজে আকবরের দায়ের কার মানহানির মামলা থেকে দিল্লির কোর্ট মুক্তি দিল সাংবাদিক প্রিয়া রামানিকে। আদালতের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি। আর সেই কারণেই প্রিয়া রামানিকে সমস্ত অভিযোগ থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। দিল্লি আদালতের রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন প্রিয়া। তিনি বলেছেন আদালের এই রায়ে আগামী দিনে দেশের নির্যাতিতা মহিলারা এগিয়ে আসার সাহস দেখাতে পারবে। যৌন নির্যাতনের প্রতিবাদে রুখে দাঁড়াতে পারবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

২০১৮ -১৯ সালে #metoo আন্দোলনে উত্তাল হয়েছিল দেশ। সেই সময় বহু মহিলাই যাঁরা অতীত দিনে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন তাঁরা মুখ খুলেছিলেন। সেই সময় নিজের ওপর হওয়ার যৌম নির্যাতন নিয়ে সরব হয়েছিলেন সাংবাদিক প্রিয়া রামনি। তিনি তাঁর প্রাক্তন বস সাংবাদিক এমজে আকবরের বিরুদ্ধে  যৌন নিপীড়ণের অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিলেন। নিজের যৌন হেনস্থার কথা শেয়ার করেছিলেন সৌশ্যাল মিডিয়ায়। আর সেই সময়ই তিনি কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এমজে আকবরকে। 

প্রিয়া রামানির অভিযোগের বিরুদ্ধে গিয়েই তাঁর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেছিলেন এমজে আকবর। তিনি বলেছিলেন তাঁর খ্যাতি নষ্ট করতেই এই ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। তাঁর দায়ের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে দিল্লির আদালত জানিয়েছে, বন্ধ ঘরে যৌন নির্যাতনের ঘটনা ঘটতে পারে। ভারতীয় আইনে মহিলা রক্ষার বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। কিন্তু অধিকাংশ মহিলাই কলঙ্ক ও ভয়ের কারণে তা প্রকাশ্যে আনতে পারেন না।