সোমবার দুপুরে ফের একবার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল রাজধানী দিল্লি ও তার সংলগ্ন এলাকা। তবে এদিনের কম্পন খুবই হালকা অনুভূত হয়েছে, রিখটার স্কেলে মাত্রা ধরা পড়েছে ২.৭ বলে শোনা যাচ্ছে। এই নিয়ে টানা দ্বিতীয়দিন রাজধানী এবং তার আশপাশের শহরগুলিতে স্বল্প-তীব্র মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানল। রবিবার বিকাল ৫টা ৫০ মিনিট নাগাদ ৩.৫ মাত্রার কম্পন অনুভূত হয়েছিল দিল্লি ও তার আশপাশের এলাকায়। এদিনের কম্পন, রবিবারের মূল ভূমিকম্পের আফটার শক বলে মনে করা হচ্ছে।

ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিজমোলজি (এনসিএস) জানিয়েছে, এদিন বেলা একটা ছাব্বিশ মিনিটে মাটি থেকে ৫ কিলোমিটার গভীরে এই ভূমিকম্প ঘটে। রবিবার, রাজধানীতে হওয়া ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৩.৫। রবিবারের মতো এদিনও ভূমিকম্পের উৎসস্থল দিল্লিই। এনসিএসের প্রধান (অপারেশনস) জে এল গৌতম বলেছেন, রবিবারের ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থলটি ছিল উত্তর-পূর্ব দিল্লির ওয়াজিরাবাদে ৮ কিলোমিটার গভীরে। এদিনও ওই অঞ্চল থেকেই ভূকমম্পনের সূত্রপাত ঘটেছে।

প্রতিবেশী শহর নয়ডা, গাজিয়াবাদ ও ফরিদাবাদেও টানা দ্বিতীয়দিন ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে। তবে মাত্রা খুব বেশি না থাকাতে, কোনও প্রাণহানি বা সম্পদের ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। রবিবার অবশ্য করোনাভাইরাসের জেরে লকডানের মধ্যে ভূমিকম্প হওয়ায় দিল্লিতে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল। অনেকেই লকডাউন ভুলে বাড়িঘর থেকে ছুটে বেরিয়ে এসেছিলেন। অনেকে আবার লকডাউনের মধ্য়ে বের হবেন কি হবেন না বুঝতে না পেরে বারান্দায় চলে আসেন।