গত কয়েকদিন ধরে দিল্লি সহ উত্তর ভারতে ভূমিকম্পের খবর পাওয়া যাচ্ছিল। মাঝে মধ্যেই কেঁপে উঠছিল দেশের রাজধানী। এবার কেঁপে উঠল উত্তর-পূর্ব ভারত। 

 

 

বুধবার সকাল ৭টা ১০ মিনিটে কেঁপে ওঠে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত। রিখটার স্কেলের কম্পনের মাত্রা ছিল ৪.৩। ভূমিকম্পের এপি সেন্টার মেঘালয়ের চেরাপুঞ্জী থেকে ৮২ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে।

আরও পড়ুন: আরব সাগরে ৬ ফুট লম্বা ঢেউ ওঠার আশঙ্কা, ১৩৮ বছর পর ঘূর্ণিঝড় দেখছে মুম্বইবাসী

এর আগে গত এপ্রিল ও মে মাসে বার বার কেঁপেছে দেশের রাজধানী দিল্লি ও তার সংলগ্ন অঞ্চল। দিল্লিতে ১৫ মে, ১২ এপ্রিল এবং ১৩ এপ্রিল কম্পন অনুভূত হয়। যদিও এর কম্পনের তীব্রতা খুব একটা বেশি ছিল না। রিখটার স্কেলে রাজধানীতে কম্পনের মাত্রা ২.৭ থেকে ৩.৫ পর্যন্ত পরিমাপ করা হয়েছিল। 

আরও পড়ুন: মুম্বইয়ের আরও কাছে নিসর্গ, শুরু হয়ে গিয়েছে ঝড়-বৃষ্টি, কিছুক্ষণের মধ্যেই আছড়ে পড়বে ঘূর্ণিঝড়টি

২০২০ সালে দেশে একের পর এক প্রাকৃতিক বিপর্যয় লেগেই রয়েছে। এমনিতেই করোনা সংক্রমণে গোটা দেশ কাবু। তারমধ্যে ২ সপ্তাহ আগেই দেশের পূর্ উপকূল দেখেছে ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডব। এবার পশ্চিম উপকূলে দাপাদাপি শুরু করেছে ঘূর্ণিঝড় নিসর্গ। দিল্লি ও উত্তর ভারতে ভূমিকম্পের সঙ্গে তীব্র তাপদাহ চলছে। তার মধ্যেই পঙ্গপালের হানা উত্তর ও মধ্য ভারত জুড়ে। বেশ কয়েকদিন ধরেই উত্তর-পূর্ব ভারতে অসমের বন্যা পরিস্থিতি খারাপ হচ্ছিল। তারমধ্যে বরাক উপত্যকায় মঙ্গলবারে ভয়াবহ মাটিধসে প্রাণ হারান অনেকেই। এবার মেঘালয়ও পড়ল ভূমিকম্পের কবলে।