গত ৫ অগাস্ট জম্মু কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বাতিল করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। তারপরই পাবলিক সেফটি অ্যাক্ট বা জন সুরক্ষা আইন-এ জম্মু কাশ্মীরের রাজনৈতিক নেতাদের বন্দী করেছিল কেন্দ্র। আটক হয়েছিলেন জম্মু-কাশ্মীরের তিন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লা, ওমরস আবদুল্লা ও মেহবুবা মুফতি-ও। শেষ দুজনের মুক্তি নিয়ে এখনও কিছু না জানা গেলেও শুক্রবার ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ফারুক আবদুল্লা-কে মুক্তি দেওয়া হল।

এদিন জম্মু ও কাশ্মীর সরকার ফারুক আবদুল্লা-র আটক বাতিল করার আদেশ জারি করেছে বলে জানান কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলটির মুখ্য সচিব (পরিকল্পনা) রোহিত কানসাল। ৮৩ বছরের ফারুক আবদুল্লা-কে গত ৫ অগাস্টই বন্দী করা হয়েছিল। দিনকয়েক আগেই আটটি বিরোধী দল বিজেপি সরকারকে একটি যৌথ চিঠি দিয়ে কাশ্মীরের সমস্ত রাজনৈতিক বন্দীদের বিশেষত তিন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী- ফারুক ও ওমর আবদুল্লা এবং মেহবুবা মুফতি-কে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানিয়েছিল।

সেই চিঠি-তে আরও বলা হয়েছিল নরেন্দ্র মোদী সরকারের অধীনে, জোর করে প্রশাসনিক পদক্ষেপ চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। গণতান্ত্রিক দেশে বিরোধী কন্ঠ রোধ করা হচ্ছে। এতে ভারতের সংবিধানে বলা ন্যায়বিচার, স্বাধীনতা, সাম্য এবং ভ্রাতৃত্বের মূল আদর্শগুলিই হুমকির মুখে পড়েছে। এরপরই এদিন কাশ্মীরের এই প্রবীন নেতাকে মুক্তি দেওয়ার কথা জানানো হয়।