ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা নিষ্চিত হল। বুধবারই কর্নাটকের কালাবুর্গিতে মৃত্যু হয়েছিলব ৭৬ বছরের এক বৃদ্ধের। গত কয়েকদিন ধরে স্থানীয় এক হাসপাতালে বিচ্ছিন্ন ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন তিনি। বুধবার সকালে তাঁর মৃত্য়ু হয়েছিল। তবে কোভিড-১৯'এই আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়েছিল কিনা তা তখনও নিশ্চিতভাবে বলতে পারেননি ডাক্তাররা। মঙ্গলবারই করোনাভাইরাসের পরীক্ষার জন্য তাঁর লালারসের নমুনা পাঠানো হয়েছিল গবেষণাগারে। এদিন সেই পরীক্ষার ফলাফল ইতিবাচক আসতেই ভারতে করোনাভাইরাস সংক্রমণে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা নিশ্চিত হল।

আরও পড়ুন- করোনাভাইরাস LIVE, ভারতে নিশ্চিত হল প্রথম মৃত্যু, আক্রান্ত ৭৫

বৃহস্পতিবার রাতে কর্নাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী শ্রীরামুলু টুইট করে জানান, কালবুর্গির ৭৬ বছর বয়সী যে কোভিড-১৯ সন্দেহভাজন  রোগীর মৃত্যু হয়েছিল, তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন, তা নিশ্চিত হয়েছে। প্রোটোকল অনুসারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। কার করা সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ হয়েছিল তার সন্ধান চালানো হচ্ছে। তাদেরকেও বিচ্ছিন্ন করে রাখা হবে এবং সেই সঙ্গে অন্যান্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

মৃত ওই বৃদ্ধের নাম মহম্মদ হুসেন সিদ্দিকি। তিনি সম্প্রতি সৌদি আরবে উমরা করতে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পরই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

আরও পড়ুন - করোনা ভাইরাস থেকে সাবধান থাকার উপায়, অ্যানিমেটেড ভিডিও প্রকাশ করল 'হু'

এর আগে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদের ৩৩ বছরের এক যুবকের মৃত্যু হওয়ার পরও সন্দেহ করা হয়েছিল তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েই মারা গিয়েছেন। তিনিও সৌদি আরব থেকেই ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। জ্বর, সর্দি-কাশি, শ্বাসকষ্ট  - করোনাভাইরাসের সমস্ত লক্ষণ নিয়েই তিনি মুর্শিদাবাদ জেলা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তাঁকে বিচ্ছিন্ন করেই রাখা হয়েছিল। গত রবিবার তাঁর মৃত্যু হয়। কিন্তু তারপরে তাঁর রক্ত ও লালার পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছিল, তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নন।

আরও পড়ুন - আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭৩, আতঙ্কে রাজধানীতে বন্ধ স্কুল-কলেজ

ভারতে বৃহস্পতিবার পাত পর্যন্ত মোট ৭৫ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদিন নতুন করে অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্যের নাম জুড়েছে করোনা আক্রান্ত রাজ্যগুলির তালিকায়। দিল্লিতে একমাসের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে স্কুল-কলেজ সিনেমা হল।