গুরুতর অসুস্থ ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা প্রবীন কংগ্রেস নেতা মনমোহন সিং। রবিবার রাতে আচমকা বুকে ব্যথা শুরু হয় এই প্রবীন রাজনীতিবিদ তথা অর্থনীতিবিদ-এর। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইন্সস্টিটিউট ফর মেডিকাল রিসার্চ বা এইমস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএনআই।

আপাতত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে দিল্লি এইমস হাসপাতালের কার্ডিওথোরাকিক ওয়ার্ডে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

এইমস হাসপাতালের একটি সূত্র জানিয়েছে, রবিবার রাত রাত ৮ টা বেজে ৪৫ মিনিট নাগাদ মনমোহন সিং-কে বুকে ব্যথার সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর এইমস-দিল্লির কার্ডিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ডাক্তার নীতীশ নায়েক-এর তত্ত্বাবধানে রয়েছেন। তাঁর সার্বিক শারীরিক তদারকি ও পর্যবেক্ষণের জন্য এইমস-এর ডাক্তারদের একটি দল তৈরি করা হয়েছে।

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ এক সূত্রের দাবি, উদ্বেগের কিছু নেই। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবেই তাঁকে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন ডাক্তারবাবুরা।

১৯৭১ সালে মনমোহন সিং ভারত সরকারের বাণিজ্য মন্ত্রক-এর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা হিসাবে যোগদান করেছিলেন। পরে ১৯৯১ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত তিনি ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তাঁর হাত ধরেই ভারতীয় অর্থনীতিতে উদার অর্থনীতির বাতাস লেগেছিল বলা হয়। ২০০৪ সালে ভারতের চোদ্দতম প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন। সেইসময় অবশ্য প্রধানমন্ত্রী হওয়ার বিষয়ে এগিয়ে ছিলেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী। কিন্তু, বিজেপি তাঁর বিরুদ্ধে 'বিদেশিনী' বলে আওয়াজ তোলার পর মনমোহন-কেই প্রধানমন্ত্রী হিসাবে বেছে নিয়েছিল কংগ্রেস। তবে অনেকেই বলে তাকেন, তিনি বস্তুত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসা সনিয়া গান্ধীর হাতের পুতুল। এই নিয়ে ২০১৯ সালে 'অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার' নামে একটি বলিউডি চলচ্চিত্রও তৈরি হয়েছিল। বর্তমানে তিনি রাজস্থান থেকে মনোনীত রাজ্যসভার সদস্য।

মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা আরেক প্রবীণ কংগ্রেস নেতা কমলনাথ, মনমোহন সিং-এর দ্রুত আরোগ্য কামনা করে একটি টুইট করেছেন।

 

এটি ব্রেকিং নিউজ। আরও আসছে...