কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের বদলা নিতে মরিয়া জইশ এবং আইএসআই। এবার তাই সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালের উপরে হামলা চালাতে বিশেষ বাহিনী তৈরি করছে জইশ। তাদের সঙ্গে এই ষড়যন্ত্রে হাত মিলিয়েছে পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই। একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি দৈনিকের খবর অনুযায়ী, এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য হাতে পেয়েছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। বড়সড় এই হামলা চালাতে রীতিমতো জঙ্গিদের বিশেষ স্কোয়াড তৈরি করে প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে বলেই গোয়েন্দাদের কাছে খবর। 

জানা গিয়েছে, বিদেশি একটি গোয়েন্দা সংস্থার তরফেই ভারতীয় গোয়েন্দাদের নির্দিষ্ট তথ্য দিয়ে সতর্ক করা হয়েছে। জইশের অন্যতম সক্রিয় সদস্য শামসের ওয়ানি এবং তার এক সহকারীর মধ্য হাতে লেখা একটি নোট ওই বিদেশি গোয়েন্দাদের হাতে আসে। যে নোটে সেপ্টেম্বর মাসেই বড়সড় সন্ত্রাসবাদী হামলার কথা বলা হয়েছে বলে দাবি। 

এর পরেই হামলা হতে পারে, দেশের এমন তিরিশটি শহরের পুলিশকে সতর্ক করা হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে জম্মু, অমৃতসর, পাঠানকোট, জয়পুর, গাঁধীনগর, কানপুর এবং লখনউ। এই সতর্কবার্তার পাওয়ার পরেই অজিত ডোভালের নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখা হয়েছে। এমনিতেই ডোভালের উপরে হামলার আশঙ্কা খুব বেশি হওয়ায় তিনি এ জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পান। সার্জিক্যাল স্ট্রাইক এবং বালাকোটে হামলার পরে অজিত ডোভাল আরও বেশি করে জঙ্গি নিশানায় রয়েছেন। সেই অনুযায়ী তাঁর নিরাপত্তা আরও আঁটোসাঁটো করা হয়েছে। 

কাশ্মীরে যাদের মাধ্যমে জইশের মূল সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ চলত, সেই জঙ্গি একের পর এক বড় মাথাকে নিকেশ করেছে ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনী। তার পরে বালাকোট হামলাও বড়সড় ধাক্কা ছিল জইশের কাছে। ফলে বদলা নেওয়ার জন্য এমনিতেই মুখিয়ে ছিল তারা। এর গত ৫ অগাস্ট কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পদক্ষেপ আগুনে ঘি ঢেলেছে। এই সবকিছুর প্রতিশোধ হিসেবে ভারতে চাঞ্চল্যকর হামলা চালিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভারতীয় নাগরিকদের নিশানা করতে চাইছে জঙ্গি সংগঠনটি।

পুলওয়ামা হামলার সময় যেভাবে ফিদাঁয়ে জঙ্গি দিয়ে হামলা হয়েছিল, সেই একই কায়দায় হামলার ছক সাজানো হচ্ছে বলে খবর। এই ধরনের ফিদাঁয়ে জঙ্গিদের ভারতে ঢোকানোর চেষ্টাও শুরু হয়ে গিয়েছে। পাকিস্তান সেনার বর্ডার অ্যাকশন টিম বা ব্যাটের সহযোগিতায় সেপ্টেম্বর মাসের ১২ এবং ১৩ তারিখে পাক অধিকৃত কাশ্মীর দিয়ে বেশ কিছু আত্মঘাতী জঙ্গিকে ভারতে ঢোকানোর চেষ্টা করা হয়। সেই চেষ্টা অবশ্য ব্যর্থ করে দেয় ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনী।