২ অগাস্ট তারিখটি যেন বিজেপি নেতাদের নিশানা করেছিল করোনাভাইরাস। দিনভর একের পর এক করোনা সংক্রান্ত দুঃসংবাদ এসেছে গেরুয়া শিবিরের জন্য। রবিবার বেশি রাতের দিকে কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফল ইতিবাচক এসেছে বলে নিজেই জানালেন কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বি.এস. ইয়েদুরাপ্পা।

টুইটারে এক সংক্ষিপ্ত পোস্টে কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, তিনি সুস্থই আছেন তবে চিকিৎসকদের পরামর্শে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হচ্ছে। গত কয়েকদিনে তাঁর সংস্পর্শে আসা সকল ব্যক্তিবর্গকে তিনি কোভিডের উপসর্গ নিয়ে সাবধান থাকতে এবং নিজেদের স্ব-বিচ্ছিন্ন করে রাখার অনুরোধ করেছেন।

এদদিন বিকালেই খবর এসেছিল বিজেপির প্রাক্তন সর্বভারতীয় সভাপতি, তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ করোনা পজিটিভ হিসাবে সনাক্ত হয়েছেন। তিনিও ইয়েদুরাপ্পার মতোই জানিয়েছিলেন, তাঁর স্বাস্থ্য ভালোই রয়েছে। তাঁকেও ডাক্তারদের কথামতো গুরুগ্রামের মেদান্ত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর যোগাযোগে অনুসন্ধান চলছে। অমিত শাহ কোভিড আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়ে টুইট করে তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনাও করেছিলেন ইয়েদুরাপ্পা। রাতে তাঁকে নিজেকেই হাসপাতালে ভর্তি হতে হল।

রবিবার সকালেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছিল উত্তরপ্রদেশে মন্ত্রিসভার সদস্য কমল রানি বরুণ-এর। কানপুরের ঘতমপুর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক যোগী মন্ত্রিসভার কারিগরি শিক্ষা দপ্তরের দায়িত্বে ছিলেন। ১৪ দিন লখনউ-এর হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। রবিবার সকালেই তাঁর মৃত্যু হয়। বয়স হয়েছিল ৬২ বছর। এদিনই আক্রান্ত হয়েছেন  উত্তরপ্রদেশের বিজেপি রাজ্য সভাপতি স্বতন্ত্র দেব সিং-ও। 

গত ২৫ জুলাই কোভিড-১৯'এ আক্রান্ত হয়েছিলেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী তথা আরেক বিশিষ্ট বিজেপি নেতা শিবরাজ সিং চৌহান-ও। তাঁর আগেই করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফল ইতিবাচক এসেছিল গত ফেব্রুয়ারি-তে কংগ্রেস থেকে বিজেপি-তে আসাস রাজ্যসভার সাংসদ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া-র।