সোমবার রাতে আবারও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পূর্ব লাদাখ সীমান্ত। চিনা সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ভারতীয় সেনা। ভারত সরকারের তরফে জানান হয়েছে, পূর্ব লাদাখের গ্যালওয়ান উপত্যকায়  ভারতীয় সেনা ও চিনা সেনা  সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।  এই ঘটনায় সেনা বাহিনীর এক অফিসার ও ২ জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে। কর্তব্যরত সেনা আধিকারিকরা কথা নিজেদের মধ্যে কথা বলে বিষয়টি মিটিয়ে নিতে সচেষ্ট হয়েছেন বলেও জানান হয়েছে। কিছু সময় পরেও ভারতীয় সেনা বাহিনীর পক্ষ থেকে বিবৃতি জারি কের জানান হয়েছে, গ্যালওয়ান উপত্যকায় চিনা সেনার সঙ্গে ডি এক্সেলেশন প্রক্রিয়া চলাকালীনই উভয় পক্ষ মুখোমুখি সংঘর্ষে অবতীর্ণ হয়। এই ঘটনায় দুই পক্ষের সেনাই হতাহত হয়েছে। 

এই দিনই পূর্ব লাদাখ সীমান্ত নিয়ে আলোচনায় বসেছিলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। তিনি বৈঠক করেন, চিফ ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত, বিদেশ মন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে। পূর্ব লাদাখের বর্তমান পরিস্থিতিত নিয়ে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা হয় বলেই সূত্রের খবর। 

অন্যদিকে বিদেশি একটি সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, ভারতীয় সেনারা সীমান্ত অতিক্রম করে চিনাদের ওপর আক্রমণ চালিয়েছে বলেই দাবি করেছে বেজিং। চিনের বিদেশ মন্ত্রককে উদ্ধৃত করে জানান হয়েছে, সীমান্ত পরিস্থিতি জটিল হতে পারে এমন ব্যবস্থা গ্রহণ না করারই আহ্বান জানান হয়েছে। চিনের দাবি এই সংঘর্ষের ঘটনায় চিনের ৫ সেনার মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন সৈন্য। 

 

সূত্রের খবর, সীমান্ত উত্তাপ নিয়ে দুই দেশের মধ্যেই বৈঠক চলছে। আর সেই বৈঠকের সূত্র ধরেই সেনা গ্যালওয়ান উপত্যকার লাইন অব অ্যাক্চুয়াল কন্ট্রোল থেকে সেনা সরাচ্ছিল ভারত। কিন্তু সেনা সরানে রাজি ছিল না চিন। পাল্টা ভারতীয় সেনাদের উত্যক্ত করার জন্য পাথর ছুঁড়ছিল বলে অভিযোগ। এই ঘটনার পরই দুই দেশের সেনা বাহিনী হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে। 

কবে থেকে এই রাজ্যে শুরু হবে লোকাল ট্রেন পরিষেবা, কী বলল রেল বোর্ড .

পাকিস্তানে ২ ভারতীয় কর্মীর ওপর 'অকথ্য অত্যাচার', ১২ ঘণ্টায় খেতে দেওয়া হয়েছিল নোংরা জল ...

ভারত-চিন সীমান্তের সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার এলাকা জুড়েই উত্তেজনা রয়েছে। বেশ কয়েক দিন ধরেই উত্তাপ বাড়ছিল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দুই দেশ সামরিক পর্যায়ে কথাবার্তাও বলেছিল। পাশাপাশি কূটনৈতিক স্তরেও কথা চলছিল দুই দেশের। এই পরিস্থিতি সেই আলোচনায় অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে সংশয়।