করোনাভাইরাস-কে নিয়ন্ত্রণের জন্য দেশব্যাপী লকডাউন ১৭ মে -র পরও বাড়াতে হবে। সোমবার, ছয় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে ভারতের সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও সম্মেলনের পর এমনটাই জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলে জানিয়েছে প্রদানমন্ত্রীর দপ্তরের একটি সূত্র। তবে কতদিন আরও লকডাউন বাড়ানো হবে সেই বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

জানা গিয়েছে, এদিনের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীরা যে সমস্ত পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীকে সেইগুবি নিয়ে তো আলোচনা হবেই, এছাড়াও বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা মনে করলে ১৫ মে তারিখের মধ্যে কেন্দ্রের কাছে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ বিষয়ে আরও পরামর্শ পাঠাতে পারেন।

এদিন প্রদানমন্ত্রী দীর্ঘ বৈঠকের শেষে মুখ্.মন্ত্রীদের বলেছেন, 'আপনাদের উত্সাহ এবং চেতনা আমাদের করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে এই যুদ্ধে জিততে সহায়তা করবে'। লকডাউনের পর অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ফের কীভাবে শুরু করা যায়, তার সমস্ত সম্ভাবনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। করোনাভাইরাস পরবর্তী সময়ে দেশে এক ভিন্ন সংস্কৃতি দেখা যাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

কী সেই বদল? প্রধানমন্ত্রী বলেছেন এই ধরণের পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য শিক্ষাব্যবস্থায় আরও বেশি করে প্রযুক্তিকে যুক্ত করতে হবে। এছাড়া দেশে পর্যটন ব্যবসার বিকাশের দারুণ সুয়োগ রয়েছে, করোনাভাইরাস পরবর্তী সময়েও যেদিকে ভারতকে এগিয়ে যেতে হবে।

বেশ কয়েকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য সোমবারের এই দীর্ঘ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে, তাদের নিজ নিজ রাজ্যের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার স্বাধীনতা চেয়েছেন। পঞ্জাব, কেরল, পশ্চিমবঙ্গ, ছত্তিশগড় এবং ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রীরা জানিয়েছেন, রাজ্যের পরিস্থিতিটা কেন্দ্রের থেকে রাজ্য সরকারগুলি বেশি ভালো জানেন। তাই রাজ্যে লকডাউন গাইডলাইন তৈরি এবং তা পরিবর্তন করে করোনভাইরাস সঙ্কট মোকাবিলায় তাঁরা আরও বড় ভূমিকা নিতে চান।