সোমবার রাতে জোড়া ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল মণিপুর। শুধু মণিপুর নয়, কম্পন অনুভূত হয়েছে গুয়াহাটি-সহ অসম, মেঘালয়, নাগাল্যান্ড, মিজোরাম-সহ প্রায় উত্তরপূর্ব ভারতের সব রাজ্যেই। তবে দুটি ভূমিকম্পই হয়েছে মাঝারি মাপের।

প্রথম ভূমিকম্পটি হয় রাত আটটা বেজে বারো মিনিটে। তার ১৩ মিনিট পর হয় দ্বিতীয় ভূমিকম্প।

প্রথম ভূমিকন্পটির রিখটার স্কেলে এই ভূকম্পনের মাত্রা ছিল ৫.৫। এটির কেন্দ্রস্থল ছিল বিষ্ণুপুর জেলার মইরাং শহরের ১৩ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে। তবে মাটি থেকে প্রায় ৪০ কিলেমিটার নিচে এই ভূমিকম্পের উৎসস্থল বলে জানা গিয়েছে।

আর দ্বিতীয় ভূমিকম্পটির রিখটার স্কেলে মাত্রা ছিল ২.৬। এই ভূমিকম্পটি হয় মইরাং শহরেই ২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে।

এখনও পর্যন্ত এই ভূমিকম্পে কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। তবে মাঝারি মাপের ভূমিকম্প হলেও মণিপুর রাজ্যে বেশ ভালোই কম্পন অনুভূত হয়। করোনাভাইরাসের বিস্তার রুখতে লকডাউন জারি থাকলেও তার মধ্য়েই রাত্রিবেলা আতঙ্কিত বাসিন্দারা রাস্তায় নেমে আসেন।

সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হল, একেবারে একই সময়ে দক্ষিণ আমেরিকা, উত্তর আমেরিকা এবং ইউরোপের কিছু অংশেও প্রায় একই সময়ে মাঝরি মাপের ভূমিকম্প হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। রবিবার নিউজিল্যান্ডেও মাঝারি মাপের ভূমিকম্প হয়েছিল। এর আগে গত মাসে দিল্লিতে একমাসের মধ্যেই তিনবার ভূমিকম্প হয়েছিল।

 

করোনাভাইরাস মহামারি তো আছেই। সেইসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশার একাংশ পড়েছে ভয়াল ঘূর্ণিঝড় আমফানের কবলে। ঝাঁসিতে হানা দিয়েছে পঙ্গপালের দল। অসমে চলছে বন্যা। এবার উত্তর-পূর্ব ভারতের বিস্তৃর্ণ অঞ্চলে হল ভূমিকম্প। প্রকৃতি আর কত পরীক্ষা নেবে, এটাই সকলের প্রশ্ন।