মুম্বইয়ে চারতলা বহুতল ভেঙে ভয়াবহ দুর্ঘটনা। ধ্বংসস্তূপের নীচে অন্তত চল্লিশজন চাপা পড়েছেন বলে খবর। ইতিমধ্যেই বারোটি দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। আহত অবস্থায় বেশ কয়েকজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন- দিল্লি বিমানবন্দরে সামনে ট্যাক্সিতে পাইলটের সর্বস্ব লুঠ, তদন্তে পুলিশ

এ দিন সকালে দক্ষিণ- মধ্য মুম্বইয়ের ডোংগরি এলাকায় ওই বহুতলটি ভেঙে পড়ে। সরু গলির মধ্যে বহুতলটি অবস্থিত হওয়ায় সেখানে উদ্ধারকাজ চালাতেও বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। দুর্ঘটনার পর পরই স্থানীয় বাসিন্দারাই প্রথমে উদ্ধারকাজে হাত লাগান। কিছুক্ষণের মধ্যে মুম্বই পুলিশ, দমকল এবং জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। কিন্তু বাড়িটি এতটাই সরু গলির মধ্যে অবস্থিত যে ধ্বংস্তূপ সরাতে কোনও বড় যন্ত্র নিয়ে সেখানে পৌঁছনো সম্ভব হচ্ছে না। 

মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবীশ জানিয়েছেন, পনেরোটি পরিবার ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়েছে। বহুতলটি প্রায় একশো বছর পুরনো বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ঘটনার উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

বৃহন মুম্বই পুরসভার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ২০১২ সালেই ওই বাড়িটি ভেঙে ফেলার জন্য নির্দেশ জারি করা হয়েছিল। কিন্তু তার পরেও সাত বছরে বাড়িটি কেন ভাঙা বা মেরামতি করা হল না, কেনই বা ঝুঁকি নিয়ে এতগুলি পরিবারকে সেখানে বসবাস করার অনুমতি দেওয়া হল, তা নিয়ে চাপানউতোর শুরু হয়ে গিয়েছে।