করোনাকালে অভূতপূর্ব সতর্কতার মধ্যে শুরু হলো ভারতীয় সংসদের অধিবেশন। বাধ্যতামূলক করোনা পরীক্ষা, স্যানিটাইজার, দূরত্ব বজায় রেখে চলল অধিবেশন। তারপরেও অবশ্য শেষরক্ষা হল না। বাদল অধিবেশনেপ প্রথম দিনেই ঘটে গেল বিপত্তি। মীনাক্ষি লেখি, অনন্ত কুমার হেগড়ে-সহ ১৭ জন সাংসদের করোনাভাইরাস রিপোর্ট পজিটিভ এল। যার ফলে আগামী দিনগুলিতে সংসদ চলা নিয়ে বড়সড় উদ্বেগ তৈরি হল।

 

 

গত ৬৮ বছরে কখনো এমন ছবি দেখা যায়নি ভারতীয় সংসদে। পাশাপাশি বসা দুই সাংসদের মাঝে লাগানো হয়েছে পলিকার্বন শিট। প্রত্যেক সাংসদের দুই পাশের আসন খালি।  এভাবেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হয়েছে। সকলের করোনা পরীক্ষা হয়েছে। ঢোকার মুখে হাত স্যানিটাইজার দিয়ে জীবাণুমক্ত করতে হয়েছে। 

আরও পড়ুন: 'আত্মনির্ভর ভারত মানে নিজের জীবন নিজে বাঁচান', প্রধানমন্ত্রীর ময়ূর প্রীতি তুলে সংসদের প্রথম দিনেই তোপ রাহুলের

এই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে লোকসভায় অর্ধেক সদস্যই বসতে পারছেন না। কিছু সাংসদ বসছেন দর্শক গ্যালারিতে। কিছু সাংসদ রাজ্যসভায় এবং রাজ্যসভার দর্শক গ্যালারিতে। রাজ্যসভার ক্ষেত্রেও একইরকমভাবে রাজ্যসভা, দর্শক গ্যালারি ও লোকসভায় সাংসদরা বসছেন। এ জন্য লোকসভা ও রাজ্যসভার অধিবেশন একসঙ্গে বসছে না। আলাদা সময়ে বসছে। সোমবার প্রথমে লোকসভা বসেছে। পরে রাজ্যসভা। কিন্তু মঙ্গলবার সকাল নয়টা থেকে একটা পর্যন্ত বসবে রাজ্যসভা, তারপর তিনটে থেকে বসবে লোকসভা। চলবে সাতটা পর্যন্ত। মাঝখানের সময়ে সংসদভবন স্যানিটাইজ করা হবে।

আরও পড়ুন: ফের দেশে দৈনিক করোনা সংক্রমণ ৯০ হাজারের উপরে, এবার মোট আক্রান্ত ৪৮ লক্ষ ছাড়িয়ে গেল

তবে প্রথমদিন লোকসভার অনেক সাংসদই ছিলেন না। সোনিয়া গান্ধী চেক আপ করাতে বিদেশে গেছেন। মায়ের সঙ্গে গেছেন রাহুলও। ফলে তাঁরা কেউই ছিলেন না। তাছাড়া বয়স্ক বেশ কিছু সাংসদও অনুপস্থিত ছিলেন। তবে অধিবেশনের প্রথম দিনেই বিজেপির সাংসদ মীনাক্ষি লেখি, অনন্ত কুমার হেগড়ে, প্রভেস সাহেব সিংহ সহ ১৭  জন সংসদ সদস্য করোনারভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। করোনার কারণে এবার পিছিয়ে গিয়ে বাদল  অধিবেশন শুরু হয়েছে।  অধিবেশনে অংশ নেওয়ার আদে সমস্ত সংসদ সদস্যকে বাধ্যতামূলকভাবে করোনার পরীক্ষা করান হয়েছিল।

 

 

এর আগে গত রবিবার পাঁচ লোকসভার সাংসদের কোভিড -১৯ রিপোর্ট পজিটিভ আস। সংসদেএকমাত্র সেইসব সংসদ ও কর্মীরা ঢোকার অনুমতি পাচ্ছেন যাদের করোনার রিপোর্ট নেগেটিভ আসছে। এদিন লোকসভা  প্রায় ২০০ জন সাংসদ ছিলেন, আর প্রায় ৫০ জন সদস্য গ্যালারিতে ছিলেন। লোকসভায় একটি বিশাল টিভি স্ক্রিন বসানো হয়েছে, যার মাধ্যমে রাজ্যসভায় থাকা লোকসভার সদস্যরা অধিবেশনে যোগ দেন।