দেশের সমবায় আন্দোলনকে আরও বেশি জোরদার করার লক্ষ্যে মঙ্গলবার তৈরি করা হল সম্পূর্ণ নতুন এক মন্ত্রক - 'সহযোগিতা মন্ত্রক' বা 'Ministry of Cooperation'। প্রসঙ্গত, বুধবার, ৭ জুলাই সন্ধাতেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার রদবদল করা হবে। তার ঠিক একদিন আগেই কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে এই পদক্ষেপ নেওয়া হল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় প্রচুর নতুন মুখ যোগ দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। তাঁদের কেউ এই নয়া মন্ত্রকের দায়িত্ব পান, না প্রধানমন্ত্রী আপাতত নিজের হাতে এই মন্ত্রকের দায়িত্ব রাখবেন, তাই নিয়ে কৌতূহল তৈরি হয়েছে।

এদিন প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে জানানো হয়েছে, এই নতুন মন্ত্রক গঠন কেন্দ্রের সম্প্রদায়ভিত্তিক উন্নয়ন অংশীদারিত্বের প্রতিশ্রুতি মেনেই করা হয়েছে। এই পদক্ষেপকে 'ঐতিহাসিক' বলে অভিহিত করে বলা হয়েছে, সহযোগিতা মন্ত্রকের দৃষ্টিভঙ্গি হবে 'সহযোগিতার মাধ্যমে সমৃদ্ধি'। সূত্রের দাবি, এই নয়া মন্ত্রক, দেশে সমবায় আন্দোলনকে শক্তিশালী করার জন্য একটি পৃথক প্রশাসনিক, আইনি এবং নীতিমূলক কাঠামো তৈরি করবে। এটি সমবায় আন্দোলনকে, একেবারে তৃণমূল স্তর পর্যন্ত জনগণের গভীর নিয়ে যেতে সহায়তা করবে।

প্রধানমন্ত্রীর দফতর আরও বলেছে, ভারতের জন্য একটি সহযোগিতা ভিত্তিক অর্থনৈতিক উন্নয়নের মডেল অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক। যেখানে সমাজের প্রতিটি সদস্য নিজ নিজ দায়িত্ব বুঝে কাজ করবেন। এই নতুন মন্ত্রক সমবায় ব্যবসাগুলিক ব্যবসায়িক স্বাচ্ছন্দ্যের বিষয়টি নিশ্চিত করতে এবং বহু-রাজ্য সমবায়গুলির বিকাশ করার লক্ষ্যে সরকারি প্রক্রিয়াগুলি সহজতর করার জন্য কাজ করবে। পৃথক সহযোগিতা মন্ত্রকের ইঙ্গিত কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী এর আগে বাজেট ঘোষণার সময়ই দিয়েছিলেন।