আগেই ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবার তাতে শিলমহর পড়ল। চলতি বছর থেকে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর জন্মদিন অর্থাৎ ২৩ জানুয়ারিতে পালিত হবে পরাক্রম দিবস। স্বাধীনতা সংগ্রামী নেতাজে এভাবেই শ্রদ্ধ জানান ও স্মরণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। মঙ্গলবার একটি বিবৃতি জারি করে একথা জানিয়েছে সংস্কৃতি মন্ত্রক। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, চলতি বছর গোটা দেশ নেতাজিত ১২৫ তম জন্ম বার্ষিকী পালন করবে। এতদিন ধরে দেশের মানুষ গোটা নেতাজির অবদান মূল্যবোধ আদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আর সেই কারণেই  কেন্দ্রীয় সরকার জাতীয় ও আন্তর্জাতিক স্তরে নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সংস্কৃতি মন্ত্রকের তরফে বলা হয়েছে, এখন নেতাজির অদম্য চেতনা ও নিঃশ্বার্থ সেবার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দিনটিকে পরাক্রম দিবস হিসেবে পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে,দেশের মানুষ মূলত যুব সমাজের মধ্যে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর আদর্শ তুলে ধরার জন্যই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।  দেশবাসীর মধ্যে দেশপ্রেমের ভাবনা জাগিয়ে তোলার জন্য এই দিনটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ বলেও জানান হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন বিজেপি আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য। একই সঙ্গে তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেই স্বাগত জানিয়েছেন। কারণ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁর মাসিক রেডিও অনুষ্ঠানে নেতাজির জন্মদিনটিকে পরাক্রম দিবস হিসেবে পালন করার ইচ্ছে প্রপকাশ করেছিলেন। 

অন্যদিকে আগামী ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কলকাতা আসছেন। ইতিমধ্যেই ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল ও জাতীয় গ্রন্থাগারে তাঁর অনুষ্ঠানসূচি চূড়ান্ত হয়েছেন। দুটি অনুষ্ঠানেই তিনি নেতাজিকে শ্রদ্ধা জানাবেন। সূত্রের খবর প্রধানমন্ত্রী জন্য এখনও পর্যন্ত ওই সময় কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচি চূড়ান্ত করা হয়নি। তবে তিনি দলীয় নেতা কর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন। অন্যদিকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ২৩ জানুয়ারি বেশ কয়েকটি কর্মসূচি গ্রহণ করছেন।

গ্যালওয়ান সংঘর্ষে নিহত কর্নেল সন্তোষ বাবুকে সম্মান প্রদান সাধারণতন্ত্র দিবসে, এখনও নীরব চিন ...

ইতিহাসের সামনে দাঁড়িয়ে ভাবনা কান্থ, সাধারণতন্ত্র দিবসে কুচকাওয়াজে তিনি হবেন প্রথম মহিলা পাইলট ...