আগামী মঙ্গলবার, অর্থাৎ ১১ ফেব্রুয়ারিই হতে চলেছে নির্ভয়া কাণ্ডের এসপাড়-ওসপাড়। ওই দিনই দিল্লির বিধানসভা নির্বাচতনের ফল প্রকাশিত হবে। শুক্রবার, সুপ্রিম কোর্ট জানালো ওই একই দিনে নির্ভয়াকাণ্ডের চার আসামি-কে আলাদা আলাদাভাবে ফাঁসি দেওয়া যাবে কিনা সেই বিষয়ে শুনানি হবে। এই নিয়ে শীর্ষ আদালতে মামলা করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার।

নির্ভয়াকাণ্ডে এর আগে দুইবার ফাঁসির দিন স্থির হয়েও পিছিয়ে গিয়েছে। প্রত্যেকবারই চার আসামির একজন একজন করে প্রাণভিক্ষার আবেদন জানিয়েছেন, আর তার জেরে স্থগিতাদেশ এসেছে মৃত্যু পরোয়ানায়। এরপর তিহার জেল ও কেন্দ্রীয় সরকার নির্ভয়ারাণ্ডের চার আসামি-কে আলাদা আলাদাভাবে ফাঁসি দেওয়ার আবেদন করেছিল দিল্লি হাইকোর্টে।

হাইকোর্ট কেন্দ্রের সেই আবেদন খারিজ করে দেয়। কারণ দিল্লির কারাগার বিধি অনুযায়ী এক মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত একাধিক ব্যক্তি থাকলে, তাদের আলাদা আলাদা ভাবে ফাঁসি দেওয়া যায় না। এরপরই হাইকোর্টের ওই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিমকোর্টে আবেদন করে কেন্দ্র। এদিন সেই আবেদনের ভিত্তিতেই মামলা শুরু করে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয়, শুনানি হবে দিল্লি নির্বাচনের ফল প্রকাশের দিনই।

এর আগে, মুকেশ, বিনয় এবং অক্ষয় - তিন আসামিই প্রাণভিক্ষার আবেদন জানিয়েছিলেন এবং রাষ্ট্রপতি সেগুলি প্রত্যাখ্যান করেছেন। তবে আরেক আসামি পবন এখনও এই আবেদন দায়ের করেনি। সুপ্রিম কোর্টে কিউরেটিভ আপিলের বিকল্পও তার হাতে রয়েছে। দিল্লি হাইকোর্ট অবশ্য গত বুধবার আগামি সাত দিনের মধ্যে নির্ভয়াকাণ্ডের আসামিদের সব আিনি প্রতিকার ব্যবহার করে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।