চূড়ান্ত নাটক চলছে নির্ভয়াকাণ্ডের দোষীদের ফাঁসি দেওয়া নিয়ে। বুধবার সকালে জানা গিয়েছিল ২২ তারিখ ফাঁসি হচ্ছে না, বিকেলে জানা গিয়েছিল নির্ধারিত দিনেই হচ্ছে। বৃহস্পতিবার ফের একবার দিল্লির এক আদালত নির্ভয়া গণধর্ষণ-হত্যা মামলার চার আসামির ফাঁসি কার্যকর করায় স্থগিতাদেশ জারি করল। ৪ আসামির একজন মুকেশ সিং মার্সি পিটিশন দায়ের করাতেই এই নির্দেশ।

তাহলে কি শেষ পর্যন্ত ফাঁসি রদও হয়ে যেতে পারে? না, সেই সম্ভাবনা যে নেই তা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বিচারক। এদিন, তিসহাজারি আদালতের বিচারক বলেন, 'আমি মৃত্যুদণ্ডের পরোয়ানা জারির বিষয়ে আমার পূর্বের আদেশের পর্যালোচনা করছি না। প্রাণভিক্ষার আবেদনের কারণে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ কার্যকর করার বিষয়টা আপাতত স্থগিত থাকবে'। ২২ জানুয়ারি এই চার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি-কে যে ফাঁসি দেওয়া হচ্ছে না তা কারা কর্তৃপক্ষকে বিচারককে রিপোর্ট দিয়ে জানাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার সকালে দিল্লি সরকারই প্রথমে জানিয়েছিল ২২ জানুয়ারি এই চার আসামিকে ফাঁসি দেওয়া যাবে না। কারণ চার আসামির মধ্যে অন্যতম মুকেশ সিং মার্সি পিটিশন দায়ের করেছে। তার আগে দিল্লির তিসহাজারি আদালতই মুকেশ (৩২) বিনয় (২৬), অক্ষয় (৩১) এবং পবন (২৫) - এই চার আসামির নামে মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছিল। ২২ জানুয়ারি সকাল সাতটায় তাদের ফাঁসিতে ঝোলানোর কথা ছিল।

নির্ভয়ার বাবা-মায়ের পক্ষে আদালতে আইনজীবী সীমা কুশওয়া যুক্তি দেন, কৃপা প্রার্থনার আবেদন বা মার্সি পিটিশনটি ভারতের রাষ্ট্রপতির কাছে মুলতুবি নেই। এটি দায়ের করা হয়েছে মাত্র। এখনও রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হয়েছে কিনা তা জানা নেই। কাজেই এই আবেদনের ভিত্তিতে ফাঁসি কার্যকর করার উপর স্থগিতাদেশ জারি করা যায় না। কিন্তু, বিচারক তাঁর যুক্তি মানেননি।

সর্বশেষ খবর অনুসারে দিল্লি সরকার মার্সি পিটিশনটি প্রত্যাখ্যান করার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে সুপারিশ করেছে। এরপর মন্ত্রক তাদের সুপারিশ একসঙ্গে করে পাঠাবে রাষ্ট্রপতির কাছে। তিনি দুটি সুপারিশের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেবেন।

 

বিস্তারিত আসছে...