করছাড়ের ঊর্ধ্বসীমা অপরিবর্তিতই রাখল কেন্দ্রীয় সরকার। অন্তর্বর্তী বাজেটের ঘোষণার মতোই, করযোগ্য আয় পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হলে কোনও কর দিতে হবে না বলে জানালেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। তবে উচ্চবিত্তদের উপরে করের বোঝা সারচার্জের মাধ্যমে বাড়ানো হল। 

যাঁদের আয় বছরে ২ কোটি থেকে ৫ কোটি টাকা হলে এবং ৫ কোটি টাকার বেশি, সেই সমস্ত করদাতার উপরে সারচার্জ বাড়ানো হল। যথাক্রমে ৩ শতাংশ এবং ৭ শতাংশ হারে সারচার্জ বাড়ানো হল। 

আরও পড়ুন- সব ঘরে জল, জল সংকটের মধ্যেই বাজেটে বড় ঘোষণা নির্মলার

তবে ঘুরপথে মধ্যবিত্তকে কিছুটা করছাড়ের সুবিধা দেওয়ার চেষ্টা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। ইলেক্ট্রিক যান কিনলে কিস্তির উপরে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত কর ছাড় পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। পয়তাল্লিশ লক্ষ টাকা পর্যন্ত গৃহঋণের উপরেও কর ছাড়ের কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। গৃহঋণের সুদের উপরে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা পর্যন্ত কর ছাড়ের কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। আগে তা ছিল ২ লক্ষ টাকা। ৮০ সি ধারাতেও কর ছাড়ের ঊর্ধসীমা অপরিবর্তিতই রাখা হয়েছে। 

২০১৩-১৪ সালের তুলনায় প্রত্যক্ষ কর আদায় ৬.৩৮ লক্ষ্য কোটি টাকা থেকে বেড়ে ১১.৩৭ লক্ষ কোটি টাকা হয়েছে বলে দাবি করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। গত পাঁচ বছরে ৭৮ শতাংশ কর আদায় বেড়েছে বলে দাবি করেছেন অর্থমন্ত্রীষ। মধ্যবিত্তদের উপর চাপ কমানোই যে সরকারের লক্ষ্য, তা মনে করিয়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। করদাতাদের ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি।