মঙ্গলবার নীতি আয়োগের কার্যালয়েও হানা দিল করোনা। আয়োগের উপ-সচিব (প্রশাসন) অজিত কুমার জানিয়েছেন, একজন ডিরেক্টর স্তরের কর্মকর্তার কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফল ইতিবাচক এসেছে। তারপরই নীতি আয়োগের ভবনটি পুরোপুরি জীবানুমুক্ত করতে ও স্যানিটাইসেশনের জন্য আগামী দুই দিন ভবনটি সিল করে দেওয়া হচ্ছে। যাঁরা ওই আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন তাঁদেরকে স্ব-পৃথকীকরণ করা হচ্ছে।

রবিবারই নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত একটি সমীক্ষা শেয়ার করে দেখিয়েছিলেন লকডাউন জারির ফলে সংক্রমণের হার দ্বিগুণ হওয়ার সময় বেড়ে ১২.৫৩ দিন হয়েছে। লকডাউনের আগে এটি ছিল মাত্র ৩ দিন। ফলে এই মুহূর্তে দেশে ১০ লক্ষেরও বেশি কোভিড-১৯ আক্রান্ত হতে পারত। এর দুইদিনের মাথাতেই সেই নীতি আয়োগের কার্যালয়েই হানা দিল করোনা।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের মতে, গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে আরও ৬২ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ১,৫৩৩ নতুন রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। এটিই কোভিড১-৯ রোগে দেশে ২৪ ঘন্টায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর সংখ্যা। সব মিলিয়ে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত নতুন করোনাভাইরাস জনিত কারণে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৩৪ এবং আক্রান্তের সংখ্যা ২৯,৪৩৫-এ পৌঁছেছে। এরমধ্যে অবশ্য ৬,৮৬৮ জনই সুস্থ হয়ে গিয়েছেন এবং একজন বিদেশী রোগী দেশ ছেড়ে চলে গিয়েছেন।