আপাতত, জাতীয় পর্যায়ে অর্থাৎ সারা ভারত জুড়ে জাতীয় নাগরিকপঞ্জী বা এনআরসি হচ্ছে না। এখনও এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি। মঙ্গলবার, এই প্রথম সরকারিভাবে সংসদে তা জানিয়ে দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। কেন্দ্র দেশব্যাপী এনআরসি আনার বিষয়ে চিন্তাভাবনা করছে কিনা এমন একটি প্রশ্নের জবাবে এদিন লিখিতভাবে এই কথা জানাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক।

সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই লোকসভায় একটি লিখিত জবাবটি পেশ করেন। তিনি লিখিতভাবে জানান, 'এখন অবধি সরকার জাতীয় স্তরে জাতীয় নাগরিকপঞ্জী বা এনআরআইসি প্রস্তুত করার বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি'।

দেশ জুড়ে এনআরসি করার কথা প্রথম তোলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। প্রথমে লোকসবার শীতকালীন অধিবেশনে বলেছিলেন দেশজুড়ে এনআরসি করার কথা ভাবা যেতে পারে। তারপর একাধিক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন পরিকল্পনা অনুযায়ী কেন্দ্র প্রথমে সিএএ লাগু করবে তারপর এনরিআর, আর এনপিআর-এর হাত ধরে আসবে এনআরসি। এমনকী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বার্ষিক প্রতিবেদনেই সেই দাবি করা হয়।

সিএএ আইন পাসের পর দেশ জুড়ে তীব্র বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর, অবশ্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাজধানী দিল্লির এক জনসভায় ক্ষোভ প্রশমন করার চেষ্টা করেন। তিনি তখনই বলেন, এনআরসি-র দেশব্যাপী প্রয়োগ নিয়ে কোনও আলোচনা হয়নি। পরে অমিত শাহ-এর মুখেও এই কথা শোনা গিয়েছে।

তবে, এতদিন বিরোধী দল সরকারের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে কোনও স্পষ্টতা না আসা নিয়ে সরকারকে নিশানা করেছে। এদিনের সরকারি জবাবের পর তা বিরোধীরা থামাতে বাধ্য হবেন বলেই মনে করা হচ্ছে। কাজেই দিল্লির নির্বাচনকে সামনে রেখে এটা বিজেপি সরকারের একটি কৌশলী পদেপ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। বিশ্লেষকরা বলছেন, সরকারের জবাবে 'এখনও অবধি' কথাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এখনও হয়নি মানে কখনও হবে না, এমনটা নয়।