ফের নয়ডায় ভেঙে পড়ল একটি নির্মিয়মান বহুতল। শুক্রবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের নয়ডার ১১ নম্বর সেক্টরে। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি ধ্বংসাবশেষের নিচে বেশ কয়েকজন আটকে পড়েছেন। জানা গিয়েছে যে বহুতলটি ভেঙে পড়ছে সেটি সেক্টর ২৪ থানার আওতাধীন। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত দুই ব্যক্তির মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।

ইতিমধ্যেই পুলিশ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়েছেন এবং স্থানীয় স্তরে উদ্ধারকাজও শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। নয়ডার ডিসিপি ও পুলিশ কমিশনার-ও ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। রয়েছে দমকলের বেশ কয়েকটি ইঞ্জিন  এবং বেশ কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স-ও। এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত ৪ জনকে উদ্ধার করা গিয়েছে। তবে আরও বহু মানুষ এখনও ধ্বংসাবশেষের নিচে াটকে আছেন বলেই জানা গিয়েছে।

প্রাথমিকভাবে উদ্ধার হওয়া চারজনের মধ্যে তিনজনের আঘাত ততটা গুরুতর নয় বলেই জানিয়েছিল নয়ডা পুলিশ। পরে অবশ্য পুলিশ জানিয়েছে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর দুই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। নয়ডার অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার শ্রীপর্ণা গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ওই বহুতলে একটি সৌর প্যানেল তৈরির কারখানা ছিল। সেখানে কিছু কর্মী ছিলেন। বিল্ডিংয়ের সামনের অংশটি পুরোপুরিই ভেঙে পড়েছে।

তবে ঠিক কী কারণে বহুতলটি ভেঙে পড়লল তা এখনও জানা যায়নি। বহুতলটির মালিক জনিয়েছেন গত কয়েকদিন ধরে ওই বাড়িটিতে জলের পাইপ লাগানোর কাজ চলছিল। কী কারণে বাড়িটি ভাঙল তাই নিয়ে তদন্ত  করা হবে।

নয়ডায় নির্মিয়মান বহুতল ভেঙে পড়াটা মোটেই নতুন বিষয় নয়। গত মে মাসেও শাহবেরি এলাকায় এরকমই একটি নির্মিয়মান বহুতল ভেঙে পড়েছিল। তবে গত কয়েক বছর ধরেই নয়ডার বিভিন্ন সেক্টরে একের পর এক নির্মিয়মান বহুতল ভেঙে পড়েছে। নির্মাতাদের বিরুদ্ধে খারাপ মাল-মশলা দিয়ে বাড়ি তৈরির অভিযোগ রয়েছে। বিশেষ করে বর্যাকালে এই বাড়িগুলি যে কোনও সময়ে ভেঙে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেকে। এই বিষয়ে নির্মাতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিও উঠেছে। কিন্তু তারপরেও বাড়ি ভেঙে পড়া বন্ধ হয়নি নয়ডায়।