যখন তখন দোকানে দোকানে খাবারের জন্য হানা। বাধা দিতে গেলেই বাঁকা শিং দিয়ে সজোর ঢুঁসো। ক্ষ্যাপা ষাঁড়ের তাণ্ডবে প্রাণ ওষ্ঠাগত দুর্গাপুর স্টেশন সংলগ্ন সেন মার্কেট-এর ব্যবসায়ীদের। ইতিমধ্যেই ষাঁড় বাবাজির আক্রমণের শিকার একজন চিকিৎসক সহ বেশ কয়েকজন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ৬ দিন ধরে একটি কালো ষাঁড় দুর্গাপুরের সেন মার্কেট এলাকায় এসে ব্যবসায়ী এবং ক্রেতাদের উপরে রীতিমতো দাদাগিরি শুরু করেছে। ষাঁড়টিকে এলাকায় আগে কখনও দেখা যায়নি বলেই দাবি স্থানীয় ব্যবসায়ীদের। আতঙ্কিত এলাকাবাসী সহ ব্যবসায়ীরা বাধ্য হয়ে প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন। ব্যবসায়ীদের আশঙ্কা, দ্রুত ওই ষাঁড়টির বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা না নিলে প্রাণহানির মতো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাঁদের অভিযোগ, ষাঁড়ের হামলার ভয়ে অনেক ক্রেতাই বাজারে আসা বন্ধ করে দিয়েছেন। 

স্থানীয় কাউন্সিলর শিপুল সাহার কাছেও ব্যবসায়ীরা ষাঁড় নিয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন।  তিনি নিজেই অবশ্য এই বাজারেরই একজন ব্যবসায়ী। বন দফতর থেকে অবশ্য প্রাথমিকভাবে জানানো হয়েছে, বন্যপ্রাণী না হওয়ায় ষাঁড় ধরার ক্ষেত্রে বন দফতরের কিছু করণীয় নেই। শিপুলবাবু অবশ্য জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে দুর্গাপুর পুর নিগমের আধিকারিকদের সঙ্গেও কথা বলেছেন তিনি। প্রয়োজনে ফের পুর আধিকারিকদের নিয়ে বন দফতরের সঙ্গে কথা বলবেন। ষাঁড় ধরা নিয়ে জটিলতা থাকায় তাই ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক আর বেড়েছে।